“সৈয়দপুরে আশ্রয়ন প্রকল্পে ঘর বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগ”


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২২, ২০২২, ৬:২৬ অপরাহ্ন / ৩১৯
“সৈয়দপুরে আশ্রয়ন প্রকল্পে ঘর বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগ”

“সৈয়দপুরে আশ্রয়ন প্রকল্পে ঘর বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগ”

শাহজাহান আলী সরকার, সৈয়দপুর-নীলফামারী প্রতিনিধি – নীলফামারী জেলার
সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নে ভূমিহীনদের জন্য নির্মিত আশ্রয়ন
প্রকল্পের ঘর বরাদ্দ থেকে ভূমিহীনরা বঞ্চিত হয়ে পাকাবাড়ী জমি আছে এমন
অনেকেই ঘর বরাদ্দের তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি
তথ্য অনুসন্ধানে জানা গেছে, সৈয়দপুর আশ্রয়ন প্রকল্পে নতুন করে আরো ১০০
(একশত)টি ভূমিহীন পরিবারের জন্য দুই শতক জায়গাসহ ১০০ (একশত) টিনসেট
পাকাবাড়ী নির্মাণ করা হয়েছে। এর মধ্যে বোতলাগাড়ী ইউনিয়নে ৫৪টি এবং
কামারপুকুর ইউনিয়নে ৪৬টি। যেহেতু এসব ঘর ভূমিহীনদের জন্য সেহেতু এসব
ঘর শুধুমাত্র ভূমিহীনদের দেওয়ার কথা। কিন্তু বোতলাগাড়ী ইউনিয়নে শতাধিক
ভূমিহীন দুঃস্থ পরিবার থাকার পরও রহস্যজনকভাবে দূর্ণীতির মাধ্যমে ভূমিহীনদের বাদ
দিয়ে পাকাবাড়ী জমি আছে এই রকম প্রভাবশালী ব্যক্তির নামও ঘর বরাদ্ধের জন্য
তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। সূত্র জানায়, জমিসহ ১২টি পাকাবাড়ীর মালিক এমন
পরিবার থেকে দুই ব্যক্তির নামে আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর বরাদ্দের জন্য তালিকাভূক্ত করেছে
কর্তৃপক্ষ। উক্ত দুই ব্যক্তি হলেন যথাক্রমে রবিউল ইসলাম ও মোঃ সবুজ আলী উভয়ের
পিতা মোঃ শামসুল হক সাং- খোর্দ্দ বোতলাগাড়ী (পূর্ব হাজীপাড়া)। এছাড়াও
জমি আছে বাড়ী আছে এই রকম অনেকের নামে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বরাদ্দের জন্য
তালিকাভূক্ত হয়েছে। এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভূক্তভোগী ভূমিহীনসহ
সচেতন এলাকাবাসী জানিয়েছেন, উক্ত ইউনিয়নের ভূমি সহকারী কর্মকর্তা
(তহশীলদার) এমদাদুল হকে দূর্নীতির কারণে এমনটি হয়েছে। এ ব্যাপারে আশ্রয়ণে
ঘর পাওয়ার আশায় নতুন করে ভালভাবে যাচাইয়ের মাধ্যমে শুধুমাত্র ভূমিহীনদের ঘর বরাদ্দ
দেওয়ার জন্য নীলফামারী জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীনের নিকট আশু
হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শাহজাহান আলী সরকার
সৈয়দপুর-নীলফামারী প্রতিনিধি
মোবাঃ ০১৭২৮৩৫৭৫০৪

তাং-২০/১০/২০২২