২০২৩ সালের নতুন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরন করে নিলো সরকারী এস,এম কলেজ।


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১, ২০২৩, ১০:১৩ অপরাহ্ন / ৩৯৮
২০২৩ সালের নতুন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরন করে নিলো সরকারী এস,এম কলেজ।
মোঃনাজমুল
মোরেলগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধিঃ
বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে সরকারি সিরাজ উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজে অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০২৩ সালের নতুন শিক্ষার্থীদের  নবীন বরন অনুষ্ঠান। বুধবার সকালে কলেজ মাঠে বর্নিল অয়োজনে তাজা গোলাপ ও রজনী গন্ধা ফুল দিয়ে বরন করে নেয়া হয় ২০২৩ সালের  একাদশ দ্বাদশ শ্রেনীর নতুন শিক্ষার্থীদের।এ সময়  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর নীতিশ বিশ্বাস।এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক এমদাদুল হক,সহকারি অধ্যাপক ও গনিত বিভাগের অাহবায়ক মোঃ জাকির হোসেন,মোঃ শাহজাহান হাওলাদার ও নবীন বরন অায়োজক কমিটির অাহবায়ক মোঃজাকির হোসেন রিয়াজ সহ অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ।অনুষ্ঠানে কলেজের বিভিন্ন শাখার শিক্ষক প্রধানেরা নবীনদের উদ্দেশ্য অনুপ্রেরনা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন,এছাড়াও কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক  মোঃবায়জিত হাওলাদার,নেয়ামুল ইসলাম নাঈম,মোরেলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরন্নবী রহমান পরাগ, মোরেলগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি অাব্দুর রাজ্জাক,কলেজ ছাত্রলীগের রিজভী আহসান,চয়ন শেখসহ অন্যান্য প্রমুখ।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর নীতিশ বিশ্বাস বলেন,আমরা তােমাদের অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে উষ্ণ আবেগে, ভালােবাসার আশ্বাসে একান্ত নিবিড় করে গ্রহণ করলাম।তােমাদের আগমন শুভ হােক। এই শিক্ষায়তনের উন্মুক্ত অঙ্গনে তােমরা জীবন বিকাশে সক্ষম হও, সফল হও — এটাই আমাদের একান্ত কামনা।তােমরা স্কুল জীবন পেরিয়ে আজ কলেজ নামক বৃহত্তর শিক্ষায়তনে এসেছ।স্কুলের সংকীর্ণ আবদ্ধ পরিসর, বাঁধাধরা নিয়মবিধির থেকে কলেজের পরিসর অতি উদার, এখানকার সামগ্রিক পরিবেশও অনেক বেশি উন্মুক্ত।এই পরিবেশে মতামত প্রকাশ, ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ ইত্যাদি বিষয়ে রয়েছে অনেক বেশি স্বাধীনতা।আশা করা যায় তােমরা এখানেে একজন পূর্ণ মানুষের স্বীকৃতিতেই আত্মনির্মাণ ও আত্মবিকাশে সক্ষম হতে পারবে। প্রসঙ্গক্রমে তোমাদের একটি উপদেশ না দিয়ে পারছি না।এ কথাটি আমাদের সবারই জানা যে, স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে তাকে রক্ষা করা অধিকতর কষ্টকর। তােমাদের ক্ষেত্রে এই কথাটি আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ।তোমরা এই স্বাধীনতার যে সুযােগ পাচ্ছো আশা করি তা সঠিকভাবে কাজে লাগাবে।
তােমরা তোমাদের বৃহত্তর জীবনের এই আহবানে নিজেদেরকে  আগামী জাতীর কাণ্ডারী – রূপে গড়ে তুলতে সচেষ্ট থাকবে, এটাই সবার প্রত্যাশা।অনুষ্ঠানে সবশেষে নতুন শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন শিক্ষা-কার্যক্রমের ক্লাস রুটিন বিতারন করা হয়।