হবিগঞ্জের মাধবপুরে অযত্ন-অবহেলায় শহীদ মিনার বেহাল” দেখার যেন কেউ নেই। 


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২০, ২০২৩, ৯:০৯ অপরাহ্ন / ৩৭৩
হবিগঞ্জের মাধবপুরে অযত্ন-অবহেলায় শহীদ মিনার বেহাল” দেখার যেন কেউ নেই। 
হবিগঞ্জের মাধবপুরে অযত্ন-অবহেলায় শহীদ মিনার বেহাল” দেখার যেন কেউ নেই। 
নাহিদ মিয়া,মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি:
হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার ১নং ধর্মঘর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে মাঠের এক কোণে ভাষা শহীদদের স্মরণে নির্মিত শহীদ মিনারটি অযত্নে অবহেলা পরে থাকে শহীদ মিনার বেহাল অবস্থায় দেখার যেন কেউ নাই।
শুধুমাত্র ১৬ই ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস,২১শে ফেব্রুয়ারী শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসসহ অন্যান্য দিবসে এর কিছুটা কদর দেখা যায়। এছাড়া সারা বছরই অরক্ষিত থেকে যায় শহীদ মিনারটি।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায, শহীদ মিনারের উপরে পিছনের অংশে কিছু সিমেন্টের প্রলেপ উঠে যাওয়ায় এবং বিক্ষত চারদিকে অসংখ্য ফাটল যেন কোনোমতে দাঁড়িয়ে আছে শহীদ মিনারটি। কারোরই কোনো সদয় দৃষ্টি নেই শহীদ মিনারটির প্রতি,নেই কোন সংস্কারের উদ্যোগও।
জানা যায়,১৯৯৪ সালে এই শহীদ মিনারটি নির্মাণ করা হয়েছিল। একসময়ে এই শহীদ মিনারটি ধর্মঘর ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার হিসেবে ব্যবহার হতো এবং ফুলে ফুলে ভরে উঠত মিনার প্রাঙ্গণ।
এখন আর সে রকম হয়ে উঠে না শুধু ২১শে ফেব্রুয়ারিতে দু-একটি সংগঠন সেখানে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে পুস্পস্থবক অর্পণ করতে আসতে দেখা যায় ।
তবে শহীদ মিনারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে সামাজিক সচেতনতা অধিক জরুরী মনে করেন এলাকার সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।
এলাকার শিক্ষার্থী ও বিশিষ্টজনদের দাবি, অতিদ্রুত বর্তমানে ধর্মঘর ইউনিয়ন পরিষদ মাঠের কোণে পূর্বে নির্মিত বেহাল শহীদ মিনারটি  ভেঙ্গে একই স্থানে নতুন করে নির্মাণ ও দর্শনীয় করে স্থাপন করার প্রয়োজন।
ধর্মঘর ইউনিয়ন চেয়ারমান ফারুক আহমেদ পারুল বলেন, দ্রুতই এখানে আধুনিক শহীদ মিনার নির্মাণ করা হবে।
মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনজুর আহ্সান জানান,২১ ফেব্রুয়ারি আগেই শহীদ মিনারটি দ্রুত সংস্কার করা হবে।
বার্তা প্রেরক
নাহিদ মিয়া
মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি।
০১৭৫২-১৮২৪৬৭