সুশিক্ষা ছাড়া সমৃদ্ধ জাতি বিনির্মাণ সম্ভব নয় -সিটি মেয়র।


প্রকাশের সময় : জানুয়ারী ৩, ২০২৩, ৭:০০ অপরাহ্ন / ৩২৫
সুশিক্ষা ছাড়া সমৃদ্ধ জাতি বিনির্মাণ সম্ভব নয় -সিটি মেয়র।
সুশিক্ষা ছাড়া সমৃদ্ধ জাতি বিনির্মাণ সম্ভব নয় -সিটি মেয়র।
মোঃ শামীম হোসেন- খুলনা –
খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, বছরের প্রথমদিনেই প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে এক অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করেছে। এত বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থীর মাঝে বই বিতরণ বিশ্বে অতুলনীয়। তিনি বলেন, সুশিক্ষা ও গুণগতমানসম্পন্ন শিক্ষা ব্যবস্থা ছাড়া সুখী ও সমৃদ্ধ জাতি বিনির্মাণ সম্ভব নয়। মেয়র রবিবার খুলনা কলেজিয়েট গার্লস স্কুল ও কেসিসি উইমেন্স কলেজ প্রাঙ্গণে পাঠ্যপুস্তক উৎসবের নতুর বই বিতরণ, বার্ষিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ এবং পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। মেয়র বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠনের পর ২০১০ সাল থেকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ শুরু হয়। ২০১০ সালে প্রায় ১৯ কোটি বই শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হয়। বাংলাদেশ একমাত্র দেশ, যেখানে সকল বই বছরের প্রথম দিনেই বিনামূল্যে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেয়া হচ্ছে। এবছরও এর কোন ব্যত্যয় হয়নি। এ কার্যক্রম সারা পৃথিবীতে প্রশংসিত হয়েছে। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনে সকল ক্ষেত্রে নেতৃত্বে দেবে। তাদের যোগ্য করে গড়ে তুলতে অভিভাবকদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে।
খুলনা কলেজিয়েট গার্লস স্কুল ও কেসিসি উইমেন্স কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ তৌহিদুজ্জামান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। এসময় কলেজের পরিচালনা পরিষদের সদস্য প্রফেসর ড. সৈয়দা লুৎফুন নাহার, রেকসনা কালাম লিলি, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে মেয়র শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক তুলে দেন। এবছর খুলনা জেলার মাধ্যমিক পর্যায়ে চারশত ২০টি স্কুলের প্রায় দুই লাখ ৫০ হাজার শিক্ষার্থীর মাঝে ২৯ লাখ নতুন বই এবং প্রাথমিক পর্যায়ের এক হাজার পাঁচশত ৭১টি বিদ্যালয়ের দুই লাখ ২২ হাজার ছয়শত ২০ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ১০ লাখ ৬৫ হাজার দুইশত ৩১ টি নতুন বই বিতরণ করা হবে। এবার সারা দেশে ৪ কোটি ০৯ লাখ ১৫ হাজার ৩৮১ জন শিক্ষার্থীর মাঝে প্রায় ৩৫ কোটি পাঠ্য বই বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। এদিকে দুপুরে খুলনা ইসলামিক ফাউন্ডেশনে উদ্যোগে মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম (৭ম পর্যায়) প্রকল্পের শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন পাঠ্যপুস্তক বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক আল-ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আলমগীর কবির, দৈনিক দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিনের সম্পাদক এসএম সাহিদ হোসেন, ১৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আবিদ উল্লাহ প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
সুন্দরবনে ট্র্যাপিং পদ্ধতিতে তৃতীয়বারের মতো বাঘ গণনায় ক্যামেরা ফাঁদ স্থাপন শুরু হয়।
মোঃ শামীম হোসেন- খুলনা –
নতুন বছরের প্রথম দিন রোববার (১ জানুয়ারি) সকাল থেকে সুন্দরবনে ক্যামেরা ট্র্যাপিংয়ের (ফাঁদ) কাজ শুরু করেছে বন বিভাগ। সুন্দরবনের দাকোপ উপজেলার কালাবগি ইকো ট্যুরিজম কেন্দ্র থেকে এ ক্যামেরা ফাঁদ স্থাপন শুরু হয়। উদ্বোধন করেন পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রকল্পের পরিচালক ও সুন্দরবন পশ্চিম বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. আবু নাসের মোহসিন হোসেন। তিনি জানান, বছরের প্রথম দিনের শুরুতেই উপমন্ত্রীর ক্যামেরা ফাঁদ স্থাপনের উদ্বোধন করেন। এর মধ্য দিয়েই সুন্দরবনের বাঘ গণনা শুরু হলো। এর আগে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা নির্ধারণে ‘সুন্দরবন বাঘ সংরক্ষণ প্রকল্প এর প্রাথমিক কাজ শুরু করা হয়। সুন্দরবন পশ্চিম বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) ও বাঘ সংরক্ষণ প্রকল্পের প্রজেক্ট ডাইরেক্টর (পিডি) হিসেবে ড. আবু নাসের মোহসিন হোসেন দায়িত্ব পালন করছেন। প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, বনের গভীরে এমন সব জায়গায় ক্যামেরা স্থাপন করা হবে, যেখান দিয়ে বাঘ চলাচলের সম্ভাবনা আছে। খুঁটিতে বাঘের আনুমানিক উচ্চতায় ক্যামেরা বসানো হবে। এসব ক্যামেরার সামনে দিয়ে বাঘ বা কোনো প্রাণী চলাফেরা করলেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে ছবি উঠবে। আর এ কাজে সব মিলিয়ে ৬৬৫টি গ্রিডে জোড়া ক্যামেরা বসানো হবে। এর মধ্যে সাতক্ষীরা রেঞ্জে ২০০টি, খুলনা রেঞ্জে ১৪০টি, শরণখোলা রেঞ্জে ১৮০টি, চাঁদপাই রেঞ্জে ১৪৫টি। প্রতিটি গ্রিডে এক জোড়া ক্যামেরা বসানো হবে। প্রতিটি গ্রিডে ৪০ দিন ক্যামেরা থাকবে। প্রতি ১৫ দিন অন্তর ক্যামেরার ব্যাটারি ও এসডি কার্ড পরিবর্তন করতে হবে। ক্যামেরা ট্র্যাপিংয়ের মাধ্যমে ছবি তোলার পর অ্যানালাইসিস করে বাঘের সংখ্যা নির্ধারণ করা হবে। এ পদ্ধতিতে ২০১৩-২০১৫ সালে সুন্দরবনের বাংলাদেশ অংশে প্রথম বাঘ জরিপ করা হয়। তখন বাঘ পাওয়া গিয়েছিল ১০৬টি। দ্বিতীয়বার ২০১৭-২০১৮ সালে জরিপ করে বাঘের সংখ্যা পাওয়া যায় ১১৪টি। খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মিহির কুমার দো জানান, নতুন বছরের প্রথম দিন সুন্দরবনে ক্যামেরা ট্র্যাপিং পদ্ধতিতে তৃতীয়বারের মতো বাঘ গণনার কাজ শুরু হয়েছে। প্রসঙ্গত, এর আগে ২০০৪ সালে বন বিভাগ জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) সহায়তায় বাঘের পায়ের ছাপ গুণে জরিপ করেছিল। এতে বাঘের সংখ্যা এসেছিল ৪৪০টি। তার আগে ক্যামেরায় ছবি তুলে ২০০৬ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক মনিরুল হাসান খান ব্রিটিশ জুয়োলজিক্যাল সোসাইটির সহায়তায় সুন্দরবনে বাঘ গণনা জরিপ করেন। তাতে বাঘের সংখ্যা ছিল ২০০টি। এছাড়া ২০১০ সালে বন বিভাগ ও ওয়াইল্ড লাইফ ট্রাস্ট অব বাংলাদেশ যৌথভাবে সুন্দরবনের খালে বাঘের বিচরণ পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে একটি জরিপ করে। এতে বাঘের সংখ্যা ৪০০ থেকে ৪৫০টি বলে উলে¬খ করা হয়।
খুলনায় শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ।
মোঃ শামীম হোসেন – খুলনা –
 পদাতিক ডিভিশন এর দায়িত্বপূর্ণ গোপালগঞ্জ এবং খুলনা জেলার শীতকালীন প্রশিক্ষণ এলাকা পরিদর্শন করেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, এসবিপি (বার), ওএসপি, এনডিইউ, পিএসসি, পিএইচডি। পরিদর্শনকালে তিনি যুদ্ধকালীন প্রস্তুতি স্বরূপ বিভিন্ন রণকৌশলগত প্রশিক্ষণ কার্যাবলী পর্যবেক্ষণ করেন। তিনি বলেন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অত্যন্ত সুনামের সাথে কাজ করছে। অনন্য পেশাদারিত্ব প্রদর্শন করে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এই সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। তিনি আরও বলেন, শীতকালীন প্রশিক্ষণ সেনাবাহিনীর সদস্যদের পেশাদারিত্বের পাশাপাশি রণকৌশলগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। পরিদর্শনকালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল লেফটেন্যান্ট জেনারেল মোঃ সাইফুল আলম, এসবিপি, ওএসপি, এসইউপি, এডব্লিউসি, পিএসসি, পিএইচডি এবং জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ও এরিয়া কমান্ডার বরিশাল এরিয়া মেজর জেনারেল আবদুল কাইয়ুম মোল্লা, আরসিডিএস, এনডিসি, পিএসসি উপস্থিত ছিলেন। পরবর্তীতে সেনাবাহিনী প্রধান ৭ পদাতিক ডিভিশন এর ব্যবস্থাপনায় খুলনা এলাকায় ২,০০০ জন অসহায় ও দুঃস্থ মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ এবং ০৫টি স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে খেলাধুলার সামগ্রী উপহার হিসেবে প্রদান করেন। সেনাবাহিনী প্রধান বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সুখে-দুঃখে সকল সময়ে দেশের মানুষের পাশে থেকে যেকোন প্রয়োজনে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সদা প্রস্তুত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, দেশগঠন ও যে কোন দুর্যোগে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সামর্থ্যের মধ্যে সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর প্রশিক্ষণকালীন সময়ে সেনাবাহিনী তার জনকল্যাণমূলক কাজের অংশ হিসেবে অসহায়, দুঃস্থ ও শীতার্ত মানুষের পাশে নিয়মিত দাঁড়ায়। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী আজ খুলনা অঞ্চলের অসহায়, দুঃস্থ ও গরীব-দুঃখী মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন। প্রশিক্ষণ এলাকায় অসহায়, দুঃস্থ ও নিম্ন আয়ের মানুষদের মাঝে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর শীতবস্ত্র বিতরণের এই মানবিক কার্যক্রম সর্বস্তরের মানুষের মাঝে ইতিবাচক সাড়া ফেলেছে। সেনাবাহিনী প্রধান শীতবস্ত্র বিতরণের পর অসহায়, দুঃস্থ ও গরীব-দুঃখী মানুষের মাঝে চিকিৎসা সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ৭ পদাতিক ডিভিশন কর্তৃক পরিচালিত ফ্রি-মেডিকেল ক্যাম্পেইন পরিদর্শন করেন। এই মেডিকেল ক্যাম্পেইনে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা বিভিন্ন ধরণের দীর্ঘস্থায়ী রোগ, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, সংক্রমিত চর্মরোগ, গর্ভবতী-প্রসূতি মায়েদের চিকিৎসা সেবা ও বিশেষ পরামর্শ প্রদান এবং বিনামূল্যে ঔষধপত্র বিতরণ করা হয়। এই কর্মসূচীতে সামরিক বাহিনীর বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা মাদারীপুর, বরিশাল ও খুলনা এলাকায় বিভিন্ন সার্জারী অপারেশনসহ ১১৭৯ জন গরীব, অসহায় ও দুঃস্থ মানুষের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। সেনাবাহিনীর এ ধরণের জনসেবামূলক কার্যক্রম জনসাধারণকে চিকিৎসা সেবা প্রাপ্তির পাশাপাশি শীতের প্রকোপ এবং অসুস্থতা থেকে আরোগ্য পেতে বিশেষ ভূমিকা রাখছে। পরিদর্শনকালীন সময় সেনাসদর ও স্থানীয় ফরমেশনের ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাগণ, স্থানীয় বেসামরিক প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ, জেসিও এবং অন্যান্য পদবির সেনাসদস্যগণ, গণমাধ্যম ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
খুলনার দাকোপে উৎসব মুখর পরিবেশে বই বিতরণ উৎসব হয়েছে।
মোঃ শামীম হোসেন- খুলনা –
গত ১ জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দ নতুন বছরের প্রথম দিন সারা দেশে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেওয়ার মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে বই বিতরণ উৎসব। এরই অংশ হিসেবে খুলনা জেলার দাকোপ উপজেলার প্রাথমিক ও  মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিন্টু বিশ্বাস এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের  সহধর্মিণী জ্যোতি বিশ্বাস। এসময় উপস্থিত ছিলেন দাকোপ উপজেলা পরিষদের  চেয়ারম্যান মুনসুর আলী খান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সোহেল হোসেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার সুমন্ত কুমার পোদ্দার, চালনা পৌরসভার কাউন্সিলর হাসিনা বেগমসহ কোমলমতি শিক্ষার্থীগণ ও অভিভাবকবৃন্দ প্রমুখ।
খুলনার সাংবাদিক অরুন সাহা আর নেই: বিভিন্নমহলের শোক।
মোঃ শামীম হোসেন- খুলনা –
দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সহ-সভাপতি, প্রচারবিমুখ, প্রবীন ও নিরহংকার সাংবাদিক অরুন সাহা আর নেই। পিতার মৃত্যুর দশ দিনের মাথায় ০১ জানুয়ারি  রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় মৃত্যু হয়। অরুন সাহার পিতার শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান ও অতিথি আপ্যায়নের দাওয়াত দিয়ে রবিবার বিকেলে তিনি তার দোলখোলার ভাড়া বাসায় এসেই অসুস্থ হয়ে পড়লে সন্ধ্যায় তাকে খুলনা সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়ার পর সন্ধ্যা সাতটা ৩৫ মিনিটের দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত: ঘোষণা করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। তার স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যা, তিন ভাইসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন রয়েছেন। ০২ জানুয়ারি সোমবার সকাল ১০টায় সাংবাদিক অরুন সাহার মরদেহ দৈনিক পূর্বাঞ্চল কার্যালয়ে আনার পর সহকর্মীদের শেষ শ্রদ্ধা নিবেদনের পর খুলনা প্রেসক্লাবে নেয়া হয়। সেখানে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর রূপসা মহাশ্মশানে শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার হঠাৎ মৃত্যুর খবরে গতকাল রাত থেকে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ, বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ হাসপাতাল ও প্রয়াতের বাসায় হাজির হয়ে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। দৈনিক খুলনাঞ্চল পরিবারের শোক: দৈনিক পুর্বাঞ্চল পত্রিকার বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার পরলোকগমনে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন দৈনিক খুলনাঞ্চল পরিবার। রবিবার (১ জানুয়ারি) প্রদত্ত বিবৃতিতে দৈনিক খুলনাঞ্চল সম্পাদক ও প্রকাশক মিজানুর রহমান মিলটন অরুন সাহার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেছেন। পূর্বাঞ্চল-ট্রিবিউন পরিবারের শোক: দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি দিয়েছেন দৈনিক পূর্বাঞ্চলের সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি ও ডেইলী ট্রিবিউন সম্পাদক বেগম ফেরদৌসী আলী, পূর্বাঞ্চলের সম্পাদক ও প্রকাশক মোহাম্মদ আলী সনি, নির্বাহী সম্পাদক আহমদ আলী খান, চীফ রিপোর্টার অমিয় কান্তি পাল, মফস্বল সম্পাদক অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা সিন্দাইনীসহ পূর্বাঞ্চল-ট্রিবিউনের সকল সাংবাদিক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ। উল্লেখ্য, অরুন সাহা ১৯৬২ সালের ৫ ডিসেম্বর নড়াইলের অনিল কুমার সাহা ও নিভা রানী সাহার গৃহে জন্মগ্রহন করেন। পেশাগত জীবনে খুলনা প্রেসক্লাব ও খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন তিনি। দৈনিক খুলনার শোক: দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকার বার্তা সম্পাদক অরুণ কুমার সাহা আর নেই। রবিবার হৃদযন্ত্রের অসুস্থতা নিয়ে সন্ধ্যা সোয়া সাতটার দিকে খুলনা সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬০বছর। তার মৃত্যুতে গভির শোক ও পরিবারবর্গের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন দৈনিক খুলনার সম্পাদক ও প্রকাশক এসএম মাহাবুবুর রহমান, নির্বাহী সম্পাদক মো. শাহ আলম, বার্তা সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেন, সহকারি সম্পাদক মাকসুদ রহমান, চিফ রিপোর্টার প্রবীর বিশ্বাসসহ দৈনিক খুলনার পরিবারের সকল সদস্যবৃন্দ।
মহানগর বিএনপির শোক: দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুণ সাহার (৬৬) আর নেই। রবিবার (১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইহলোক ত্যাগ করেছেন তিনি। মৃত্যুকালে স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যাসহ অসংখ্যা গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। দৈনিক পূর্বাঞ্চল এর বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন খুলনা মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিদাতারা হলেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির তথ্য সম্পাদক আজিজুল বারি হেলাল, সাবেক ছাত্রনেতা ও খুলনা মহানগর বিএনপির সম্মানিত সদস্য রকিবুল ইসলাম বকুল, মহানগর বিএনপির আহবায়ক এড. এস এম শফিকুল আলম মনা, মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন প্রমূখ। বিবৃতিদাতারা প্রয়াত অরুন সাহার আত্মার শান্তি কামনা করেছেন। খুলনা টাইমস পরিবারের শোক: খুলনা প্রেসক্লাব ও খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সিনিয়র সদস্য, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে দৈনিক খুলনা টাইমস পরিবার। এক বিবৃতিতে তারা অরুন সাহার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। বিবৃতিদাতারা হলেন খুলনা টাইমস এর প্রধান সম্পাদক শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন, সম্পাদক ও প্রকাশক সুমন আহমেদ, নির্বাহী সম্পাদক আসাদুজ্জামান খান রিয়াজ, যুগ্ম সম্পাদক ও সিইও ইয়াছিন আরাফাত রাকিব, বার্তা সম্পাদক ফারহা শেখ বহ্নি সহ কর্মরত সাংবাদিক ও কর্মচারীবৃন্দ। বিপিজেএ খুলনা জেলার শোক : দৈনিক পূর্বাঞ্চল এর বার্তা সম্পাদক অরুন সাহা হার্ট অ্যাটাক জনিত কারণে রবিবার সন্ধ্যায় খুলনা সিটি মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরলোকগমন করেছেন। বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন খুলনা জেলা শাখার পক্ষ থেকে মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে বিবৃতি জানিয়েছেন সংগঠনের সভাপতি মোঃ জাহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শেখ কামরুল আহসান সহ নেতৃবৃন্দ ও কার্যনির্বাহী সদস্যবৃন্দ। কেসিআরএ’র শোক: দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক, সিনিয়র সাংবাদিক অরুন কুমার সাহার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন খুলনা ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের (কেসিআরএ) নেতৃবৃন্দ। এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ তাঁর আত্মার শান্তি কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। বিবৃতিদাতারা হলেন এসোসিয়েশনের সভাপতি সুমন আহমেদ, সহ-সভাপতি ডিএম রেজা সোহাগ ও শিশির রঞ্জন মল্লিক, সাধারণ সম্পাদক আহমদ মুসা রঞ্জু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম নূর ও মামুন খান, কোষাধ্যক্ষ কামরুল হোসেন মনি, দপ্তর সম্পাদক জয়নাল ফরাজী, কার্যনির্বাহী সদস্য এইচ এম আলাউদ্দিন, সোহাগ দেওয়ান ও আব্দুল জলিল প্রমুখ। দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন পরিবারের শোক: খুলনা প্রেসক্লাব ও খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সিনিয়র সদস্য, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে দৈনিক দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন পরিবার। এক বিবৃতিতে তারা অরুন সাহার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন।
বিবৃতিদাতারা হলেন দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন সম্পাদক ও প্রকাশক, খুলনা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি এস এম সাহিদ হোসেন, বার্তা সম্পাদক মিলন হোসেন, জয়নাল ফরাজী, শশাঙ্ক স্বর্ণকার, চিফ ফটোসাংবাদিক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক, ফটোসাংবাদিক এস এম বাহাউদ্দিনসহ কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ।
বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি: দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকার বার্তা সম্পাদক ও সাংবাদিক অরুণ সাহার মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি প্রদান করেছেন বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ-উজ-জামান, মহাসচিব কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মাদ আলী, সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শেখ মোশাররফ হোসেন, সহ-সভাপতি শাহীন জামাল পন, মোঃ নিজাম-উর রহমান লালু, জেড এ মাহমুদ ডন, মিজানুর রহমান বাবু, এ্যাড. কুদরত-ই-খুদা, অধ্যাপক মোঃ আবুল বাসার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ বদিয়ার রহমান, কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, চৌধুরী মোঃ রায়হান ফরিদ, মামনুরা জাকির খুকুমনি, যুগ্ম মহাসচিব এড. শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, মোঃ মনিরুজ্জামান রহিম, মীর বরকত আলী, মিজানুর রহমান জিয়া, শেখ হাসান ইফতেখার চালু, কোষাধ্যক্ষ মিনা আজিজুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার মনিরুল ইসলাম, মহিলা সম্পাদক রসু আক্তার, দপ্তর সম্পাদক নুরুজ্জামান খান বাচ্চু, প্রচার সম্পাদক মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. লুৎফর রহমান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ইলিয়াস মোল্লা, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সরদার রবিউল ইসলাম রবি, যুব বিষয়ক সম্পাদক মতলেবুর রহমান মিতুল, ক্রীড়া সম্পাদক শেখ আবিদ উল্লাহ, সমাজসেবা সম্পাদক মোঃ আব্দুস সালাম, শ্রম সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান, শিক্ষা সম্পাদক অধ্যাপক আযম খান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোল্লা মারুফ রশীদ, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক এস এম আসাদুজ্জামান মুরাদ, পরিবেশ সম্পাদক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ এনামুল হাসান ডায়মণ্ড, কৃষি সম্পাদক আহমেদ ফিরোজ ইব্রাহিম, বাণিজ্য সম্পাদক জোবায়ের আহমেদ খান জবা, লাইব্রেরী সম্পাদক মল্লিক মাসুদ করিম, নির্বাহী সদস্য রকিব উদ্দিন ফারাজী, এড. আব্দুল্লাহ হোসেন বাচ্চু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর, শেখ মুশারেফ হোসেন, আলী আকবর টিপু, আনিছুর রহমান বিশ্বাস, অধ্যক্ষ রেহেনা আক্তার, এস এম আকতার উদ্দিন পান্নু, শেখ আব্দুস সালাম, ফেরদৌস হোসেন লাবু, মোঃ হায়দার আলী, কামরুল করিম বাবু, রফিকুল ইসলাম বাবু, প্রমিতি দফাদার প্রমুখ। জেলা সৈনিক লীগের শোক: দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকার বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ খুলনা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। প্রদত্ত বিবৃতিদাতারা হলেন বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ খুলনা জেলা শাখার সভাপতি, ছাত্রলীগের সাবেকনেতা এসএম ফরিদ রানা, সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান বাদশা, মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক, নাহার আক্তার, ইঞ্জিঃ শাহরুখ ইসলাম রানা, আব্দুল জব্বার, মোঃ এনামুল হক, ফারহানা রহমান, অপূর্ব মল্লিক, এসএম শাহীন আলম, জাকির হোসেন, আতিয়ার রহমান, আজিজুর রহমান, জিয়াউর রহমান জিয়া, আল আমিন, জয়ন্ত বিশ্বাস, শফিকুল ইসলাম ছোটন, নৃপেন বিশ্বাস, জীএম জিল্লুর রহমান, রবিউল ইসলাম, মিলন টিকাদার প্রমূখ। অনুরূপ বিবৃতি প্রদান করেছেন বটিয়াঘাটা উপজেলা শাখার সভাপতি অলোক মল্লিক, সাধারণ সম্পাদক এসএম সৌরভ, কয়রার আহবায়ক আরাফাত হোসেন, সদস্য সচিব রুহুল আমিন পাশা, রূপসার আহবায়ক আজিম হোসেন, সদস্য সচিব রানা ইসলাম, দাকোপের আহবায়ক জলিলুর রহমান, সদস্য সচিব জাহিদ হাসান, ডুমুরিয়া উপজেলার আহবায়ক আব্দুল হালিম, সদস্য সচিব আবু মুছা সরদার, ফুলতলার আহবায়ক খোরশেদ আলম মোড়ল, পাইকগাছার আহবায়ক পলাশ মন্ডল, সদস্য সচিব সেলিনা আক্তার। ইউপি মেম্বার এসোসিয়েশনের শোক: সাংবাদিক অরুণ সাহার অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবার বর্গের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ। প্রদত্ত বিবৃতি দাতারা হলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি হোসেন আলী মাষ্টার, সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশীদ মুন্না, বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ কামরুল ইসলাম শেখ,খুলনা জেলা শাখার সভাপতি এসএম ফরিদ রানা, সাধারণ সম্পাদক সরদার মাসুদ রানা। কেইউজের শোক: খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের অন্যতম সদস্য, দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকার বার্তা সম্পাদক অরুণ কুমার সাহা আর নেই। তিনি রবিবার হৃদযন্ত্রের অসুস্থতা নিয়ে সন্ধ্যা সোয়া সাতটার দিকে খুলনা সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। এসময় কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরে মেডিকেল সনদের জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। তার মৃত্যুতে গভির শোক ও পরিবারবর্গের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের (কেইউজে) নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন, সভাপতি ফারুক আহমেদ, সহ-সভাপতি মো: জাহিদুল ইসলাম, আলমগীর হান্নান, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিয়াজ, যুগ্মসম্পাদক নেয়ামুল হোসেন কচি, কোষাধ্যক্ষ দিলীপ বর্মন, দপ্তর সম্পাদক শেখ আব্দুল হামিদ, প্রচার ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এসএম মানিরুজ্জামান, সদস্য আনোয়ারুল ইসলাম কাজল, মিলন হোসেন, শেখ জাহিদুল ইসলাম। খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্যের শোক ও সমবেদনা: দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুন সাহা (৬২) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রবিবার (১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। তিনি মৃত্যুকালে স্ত্রী, এক পুত্র, এক কণ্যা সন্তানসহ অসংখ্যা গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। কিছুদিন আগেই পিতৃবিয়োগ হয় তার। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা এবং বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু। স্বাধীন সমাজকল্যাণ যুব সংস্থার শোক: দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার (৬০) মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা এবং বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন কয়রার দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের আংটিহারা এলাকায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বাধীন সমাজকল্যাণ যুব সংস্থার সভাপতি মোঃ আবু সাঈদ খান ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান। চুলকাটি প্রেসক্লাবের শোক : খুলনার বহুল প্রচারিত দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক ও প্রবীন সাংবাদিক অরুন সাহা’র অকাল মূত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন,বাগেরহাট সদর উপজেলার চুলকাটি প্রেসক্লাব। বিবৃতিদ্বাতারা হলেন, প্রেসক্লাব সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক পি কে অলোক, সহ-সভাপতি চন্দন কুমার দেবনাথ, সাধারন সম্পাদক শেখ আনিছুর রহমান, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক বাতশা আলম, তথ্য ও আইসিটি বিষয়ক সম্পাদক শেখ আসাদুজ্জামান সোবহান, কোষাধ্যক্ষ অমিত কর বিলাস, নির্বাহী কমিটির সদস্য শিশির শিকদার, শেখ মিজানুর রহমান মিঠু, বিপুল চন্দ্র দেবনাথ, আরিফ ঢালী, ফটিক ব্যানার্জী, সাধারন সদস্য শেখর ব্যনার্জী, শেখ মাহাফুজুর রহমান, শক্তি নারায়ন দাস, শেকেন্দার আলী মোড়ল, সুমন কুমার পাল ও সাবেক সভাপতি জি,এম মিজানুর রহমান প্রমুখ। রূপান্তরের শোক: রূপান্তর-এর সুহৃদ, রূপান্তর কর্মী আকাশ সাহার বাবা, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুণ সাহা আর নেই। আজ রোববার সন্ধ্যায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
অরুণ সাহার মৃত্যুতে রূপান্তর পরিবারের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে। রূপান্তর পরিবারের পক্ষে নির্বাহী পরিচালকদ্বয় স্বপন কুমার গুহ ও রফিকুল ইসলাম খোকন এক শোক বার্তায় অরুণ সাহার আত্মার শান্তি কামনা করে তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। খুলনা জেলা কৃষক লীগের শোক: দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুণ সাহা’র মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা জেলা কৃষক লীগ নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন জেলা কৃষক লীগের সভাপতি অধ্যাপক আশরাফুজ্জামান বাবুল, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মানিকউজ্জামান অশোক, সিনিয়র সহ-সভাপতি খাঁন খোরশেদ আলম, সহ-সভাপতি এড. আনোয়ার হোসেন, এড. মনজিলুর রহমান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম, এমদাদুল হক সুমন, মোঃ হাতেম আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রকাশ কান্তি বিশ্বাস, দপ্তর সম্পাদক আল মাহমুদ প্রিন্স, সহ-প্রচার সম্পাদক সাইফুল ইসলাম শিশির, সদস্য শেখ শাহরুজ্জামান শাহরিয়ার, গাজী আব্দুর রাজ্জাক সোহেল, আব্দুল মান্নান খান মনা প্রমুখ। প্রেসক্লাব চত্বরে আজ শেষশ্রদ্ধা : খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সহ-সভাপতি ও দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুন সাহা (৬০) রবিবার (০১ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৭.৩৫ মিনিটে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইহলোক ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গত ২০ ডিসেম্বর তাঁর পিতা অনীল কুমার সাহা ইহলোক ত্যাগ করেন। এদিকে সাংবাদিক অরুণ সাহার মৃত্যুতে তাঁর আত্মার শান্তি কামনাসহ গভীর শোক প্রকাশ, শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মামুন রেজাসহ কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্যবৃন্দ। পারিবারিক ও সহকর্মীদের সূত্রে জানা গেছে, রবিবার বিকেলে অরুন সাহা বুকে ব্যাথা অনুভব করলে তাৎক্ষনিক তাঁকে খুলনা সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় তার অবস্থার আরও অবনতি হয়। পরে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে প্রয়াত সাংবাদিক অরুন সাহা’র প্রতি শেষশ্রদ্ধা জানাতে তাঁর মরদেহ আগামীকাল সোমবার সকাল ১০ থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত তাঁর শেষ কর্মস্থল পূর্বাঞ্চলে রাখা হবে। এছাড়া সাংবাদিক ও সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য বেলা ১১টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত খুলনা প্রেসক্লাব চত্বরে তাঁর মরদেহ রাখা হবে। এরপর ধর্মসভা মন্দির হয়ে রূপসা মহাশ্মশানে নিয়ে তাঁর মরদেহের শেষকৃত অনুষ্ঠিত হবে। অরুণ সাহার মৃত্যুতে ফোয়াবের শোক: দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুণ সাহা আর নেই। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে খুলনা সিটি মেডিকেলে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার মৃত্যুতে ফিসফার্ম ওনার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ফোয়াব) এর পক্ষ থেকে তার আত্মার শান্তি কামনায় ও শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর শোক জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করা হয়েছে। বিবৃতিদাতার হচ্ছে সংগঠনের সভাপতি মোল্লা সামচুর রহমান শাহীন, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান রুবেল, ওয়াজেদ আলম, লস্কর মনিরুজ্জামান, শাকিল হোসেন, শাওন, ড. বােয়াজিত মোড়ল, শহিদুল ইসলাম, মোস্তফা কামাল মানিকসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। দাকোপ প্রেসক্লাবের শোক: খুলনা প্রেসক্লাব ও খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সিনিয়র সদস্য, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের বার্তা সম্পাদক অরুন সাহার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে দাকোপ প্রেসক্লাব। এক বিবৃতিতে তারা অরুন সাহার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। বিবৃতিদাতারা হলেন
প্রেস ক্লাবের সভাপতি মহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া সিপন, সাধারন  সম্পাদক শেখ মোজাফফার হোসেন, সাবেক সভাপতি শচীন্দ্র মন্ডল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জি এম রেজা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজগর হোসেন ছাব্বির, সাবেক আহবায়ক গোবিন্দ বিশ্বাস, সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি স্বপন কুমার রায়, বর্তমান সহ-সভাপতি জুবায়ের রহমান লিংকন, কুমারেশ বিশ্বাস, সহ-সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামীম হোসেন, কোষাধ্যক্ষ মনিরুল ইসলাম মনি, দপ্তর সম্পদক জি এম আজম, কার্যনির্বাহী সদস্য মজনু ফকির, পারুল বেগম, সদস্য জি এম জাকির হোসেন, তুষার দাস, গাজী আবুল বাশার, বিধান চন্দ্র ঘোষ, দীপক রায়, দীপক সরদার, রুহুল আমীন, সোহাগ আহমেদ, জয়ন্ত রায়, এস,এম মামুনুর রশিদ, প্রবীর রায় বাপ্পী, গাজী সরোয়ার হোসেন প্রমুখ।