সন্দীপের কৃতী সন্তান ডাঃ তহিদ রাসেল – নিন্দুকদের বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে ফিরতে চান নতুন রুপে


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২৩, ৯:৪৫ অপরাহ্ন / ২৮৬
সন্দীপের কৃতী সন্তান ডাঃ তহিদ রাসেল – নিন্দুকদের বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে ফিরতে চান নতুন রুপে

নিজস্ব প্রতিবেদক

 

 

 

 

সেবা হচ্ছে মহৎ কাজ আর মানুষকে নিপিড়ন করা হচ্ছে মহা পাপ এই কথা মাথায় রেখে ১৪- ১৫সেশনে ডিপ্লোমা ইন মেডিসিন (IHT) ইন্সটিটিউট অফ হেলথ এন্ড টেকনোলজি,ডি. পি.টি (ফিজিওথেরাপি) ফিজিক্যাল মেডিসিন এন্ড রিহ্যাবকোর্স সম্পন্ন করেন এবং মা ও শিশু স্বাস্থ্য বিষয়ক কোর্স (মিরপুর হাসপাতাল, ঢাকা) এবং ২০১৫ সনে D.M.S (Diploma in medical Science) ট্রেনিং এবং বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি কর্তৃক ২০১৮ সনে BDRCS ট্রেনিং, ২০১৫ সনে ICDDR,B কর্তৃক নাক, কান, গলা ও হাঁপানি এবং শিশু স্বাস্থ্য বিকাশ বিষয়ক ট্রেনিং সমাপ্ত করিয়া অত্যন্ত সুনামের সহিত মানব সেবায় ব্রত ছিলেন তিনি । কিন্তু কিছু নিন্দুকেরা ষড়যন্ত্র করে তাকে ঠিকতে দেননি।ছোট বেলা থেকে আশা ছিলো গ্রামের দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়াবেন, সামর্থ্য অনুযায়ী ফ্রি চিকিৎসা দিবেন কিন্তু নিন্দুকেরা তা হতে দেননি তার বিরুদ্ধে লেগে সমাচলনা করে তার ক্যারিয়ার ধ্বংস করতে উঠেপড়ে ষড়যন্ত্র করেন।এর পিছনে ছিলো একাধিক কারণ ছিলো প্রশাসনিক ক্ষমতা ও রাজনৈতিক এছাড়াও ছিলো কিছু ছদ্ধবেশী সুশী ও অসাধু সাংবাদিক চক্র।একাধিক লোক তার বিরুদ্ধে লেগে থেকে তাকে সরিয়ে দিতে কিন্তু তিনি ছিলেন একা তিনি যেহেতু সেবক তিনি রোগীদের সেবা দেয়া ছিল উনার লক্ষ্য নিন্দুকের চক্রের তিনি কিছুই জানতেন না। মন ভেংগে গেছে সত্যি কিন্তু তার ছিলো তার দূরন্ত সাহস আর অধীর বিশ্বাস তিনি আবার ফিরবেন বশে। এখন তিনি দেশ বিদেশে সেবা দিয়ে দিনের পর দিন সুনাম কুড়িয়ে যাচ্ছেন।দরিদ্রদের দিচ্ছেন ফ্রি চিকিৎসাসহ, ওষুধ ও ফ্রি খৎনা ক্যাম্প করে যাচ্ছেন। তিনি ফিরতে যাচ্ছেন নতুন রুপে। নিজেকে প্রমাণ করতে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন।নিজেকে প্রমাণ করতে চান আরো একবার।রোগী দেশবাসী ও তার ভক্তদের উদ্দেশ্যে শুধু একটা কথায় পৌঁছে দিতে চান তিনি বলেন, সেবা মহৎ কাজ,সেবা নিন সুস্থ থাকুন।
তিনি থমকে যাওয়ার নয়, সময় কথা বলবে তিনি সেই সময়কে কাজে লাগিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন নিজেকে প্রমাণ করতে।নিন্দুকদের তিনি কঠিন জবাব দিবেন তার মহৎ কাজে।তিনি জানান,ভালো থাকুক নিন্দুকেরা। শুধু অপেক্ষা সমেয়ের কারণ সময় অনেক বেশি শক্তিশালী। অবশেষে তিনি তার রোগী ভক্তদের জানান তার পক্ষ থেকে গভীর সালাম ও শ্রদ্ধা।