শেরপুরে প্রতিবেশি ভাইয়ের বউয়ের লাঠির আঘাতে সিকউরিটি গার্ডের মৃত্যুর অভিযোগ


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ১৯, ২০২৪, ৭:৪৫ অপরাহ্ন / ২১
শেরপুরে প্রতিবেশি ভাইয়ের বউয়ের লাঠির আঘাতে সিকউরিটি গার্ডের মৃত্যুর অভিযোগ

জাহাঙ্গীর হোসেন, শেরপুর প্রতিনিধি : শেরপুরের নকলায় প্রতিবেশি এক ছোটভাইয়ের বউয়ের লাঠির আঘাতে মোরাদ হোসেন (৫৫) নামে এক ব্যাক্তির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।
১৯ এপ্রিল শুক্রবার সকালে টালকী ইউনিয়নের পূর্বটালকী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
মোরাদ পূর্বটালকী গ্রামের রহিম মাস্টারের ছেলে। তিনি ঢাকায় একটি বেসরকারি অফিসে সিকিউরিটি গার্ডের চাকরী করতেন।
ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে নকলা থানা পুলিশ পূর্বটালকী গ্রামের জালাল উদ্দিনের (৫০) স্ত্রী মাজেদা বেগম (৪৫) ও তাঁর মেয়ে খুশি বেগমকে (১৫) আটক করেছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায় মোরাদ দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার কল্যাণপুরে একটি বেসরকারি অফিসে সিকিউরিটি গার্ডের চাকরী করতেন। বাড়ির সীমানা নিয়ে প্রতিবেশি ছোটভাই জালালের সাথে মোরাদের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল।
অফিস থেকে ছুটি নিয়ে ১৯ এপ্রিল শুক্রবার সকালে গ্রামের  বাড়িতে আসেন মোরাদ। সাথে নিয়ে আসেন বেশকিছু আসবাবপত্র। বাড়িতে আসবাবপত্র ঢুকানো নিয়ে মোরাদের সাথে বিবাদে  জড়িয়ে পড়েন জালালের স্ত্রী মাজেদা। বিবাদের একপর্যায়ে মাজেদা পেছন থেকে মোরাদের মাথায় লাঠি দিয়ে সজোরে আঘাত করলে মোরাদ মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে স্থানীয়রা মোরাদকে উদ্ধার করে মুমূর্ষু অবস্থায় ঊপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।
নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান এঘটনায় পূর্বটালকী গ্রামের জালালের স্ত্রী মাজেদা ও তাঁর মেয়ে খুশিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। মোরাদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলাসদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। পরবর্তী আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।