শেখ রাসেল স্মৃতি নৌকাবাইচ ও সংষ্কৃতি উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শ্রম প্রতিমন্ত্রী, অপসংস্কৃতিকে রুখতে হলে বেশি বেশি দেশীয় সংস্কৃতি চর্চা করতে হবে। 


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৩১, ২০২২, ৭:২৬ অপরাহ্ন / ৫৪৫
শেখ রাসেল স্মৃতি নৌকাবাইচ ও সংষ্কৃতি উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শ্রম প্রতিমন্ত্রী, অপসংস্কৃতিকে রুখতে হলে বেশি বেশি দেশীয় সংস্কৃতি চর্চা করতে হবে। 
শেখ রাসেল স্মৃতি নৌকাবাইচ ও সংষ্কৃতি উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শ্রম প্রতিমন্ত্রী, অপসংস্কৃতিকে রুখতে হলে বেশি বেশি দেশীয় সংস্কৃতি চর্চা করতে হবে। 
এস কে ইউসুফ খুলনা –
খুলনা ৩ আসনের সংসদ সদস্য শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি বলেছেন‘‘ ভিনদেশী অপসংস্কৃতি ভীড়ে আজ আমাদের দেশীয় ঐতিহ্য ও গ্রাম বাংলার দেশীয় স্্ংস্কৃতি  হারিয়ে যেতে বসেছে। আবহমান বাংলার হাজার বছরের সংস্কৃতি আজ আমরা ভুলে যেতে বসেছি এ জন্য আমাদেরকে বেশি বেশি সংস্কৃতি চর্চা করতে হবে। আমাদের ইতিহাস ও ঐতিহ্য নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে  এ ধরণের আয়োজন বিশেষ ভুমিকা রাখবে। তিনি গতকাল শুক্রবার  ঐতিহ্যবাহী  গিলাতলা নজরুল থিয়েটার ক্লাবের উদ্যোগে তিন দিনব্যাপি গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী শেখ রাসেল স্মৃতি নৌকা, ভেলা, ডিঙ্গিবাইচ, ক্রিড়া প্রতিযোগিতাসহ দেশীয় সংষ্কৃতি উৎসব-২০২২ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন’’।১নং আটরা গিলাতলা ইউনিয়ন ও ৮নং সিদ্দিপাশা ইউনিয়ন বাসীর সার্বিক সহযোগিতায় তিন দিনব্যাপি  অনুষ্ঠানের শান্তির প্রতিক কবুতর ও বেলুন উড়িয়ে শুভ উদ্বোধন করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খুলনা সির্টি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্জ তালুকদার আব্দুল খালেক। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক মৎস ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী ও খুলনা ৫ আসনের সংসদ সদস্য বাবু নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এম,ডি  এ বাবুল রানা, মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মুন্সি মাহবুব আলম সোহগ, যোগিপোল ইউপি চেয়ারম্যান মো. সাজ্জাদুর রহমান লিংকন । অনুষ্ঠানের সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন খানজাহান আলী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আবিদ হোসেন, আটরা গিলাতলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্জ শেখ জাহাঙ্গীর হোসেন। বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক সরদার আলী আহম্মেদের সভাপতিত্বে এবং ফারহানা ইয়াসমিন. ইউপি সদস্য নবীরুল ইসলাম রাজা ও মো. খান ইমদাদ হোসেন মিন্টুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সম্মানীত অতিথি ছিলেন শ্রম প্রতিমন্ত্রীর এপিএস আলহাজ্জ মো. শাহবুদ্দিন আহমেদ, খানজাহান আলী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আনিছুর রহমান, হ্যামকো গ্রুপের পরিচালক আলহাজ্জ মো. কবির হোসেন তালুকদার, মোড়ল ফিলিং ষ্টেশনের পরিচালক আলহাজ্জ মোড়ল আব্দুস সোবহান, আওয়ামী লীগ নেতা শেখ আব্দুল হক, খ.ম লিয়াকত আলী । অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন তিন দিনব্যাপি দেশীয় সংষ্কৃতি উৎসব উৎযাপন কমিটির  যুগ্ন আহবায়ক সৈয়দ কিসমত আলী, সদস্য সচিব আলহাজ্জ শেখ আব্দুল হক, উপদেষ্ঠা  আলহাজ্জ  খান হাফিজুর রহমান, নজরুল থিয়েটার ক্লাবের সভাপতি খান জাকির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক খান রিয়াজুল ইসলাম রাজা, বায়জিত সরদার, রেজোয়ান আাকুঞ্জী রাজা। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধনে ছিলো ফুলতলা উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান ফারজানা ফেরদৌস নিশা। উদ্বোধনী দিনে গতকাল শুক্রবার দুপুর ৩টায় নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় খুলনা জেলাসহ খুলনার বাহিরের জেলা থেকে একাধিক দল নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে  টুংগীপাড়া থেকে আগত  জয় মা দূর্গা,  প্রথম রানা আপ টুংগীপাড়া থেকে আগত জয় মা কালি দ্বিতীয় রানা আপ তেরখাদা থেকে আগত ভাই ভাই জলপরি, চতুর্থ স্থান অধিকার করে মা শীতলা , পঞ্চম স্থান অধিকার করে বাংলার বাঘ।
তিন দিনব্যাপি অনুষ্ঠানে আজ ৩১ ডিসেম্বর শনিবার  দ্বিতীয় দিনে দুপুর ১২টায় ভেলাবাইচ প্রতিযোগিতা, বিকাল ৩টায় ডিঙ্গিবাইচ প্রতিযোগিতা এবং সন্ধ্যা ৭টায় সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হবে এবং আগামীকাল ১ জানুয়ারী রবিবার সমাপণি দিনে সকাল ৯টায় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, দুপুর ১টা ৩০ি মনিটে সাঁতার প্রতিযোগিতা, সন্ধ্যা ৬টায়  প্রতিবন্ধী ও মুমুর্ষু রোগিদের  আর্থিক সহযোগিতা প্রদান, সন্ধ্যা ৭টায় সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা এবং রাত ৯টায় ক্লাব কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হবে।

খুলনা জুট স্পিনার্সের শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া পাওনা এবং ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে শিরোমণিতে শ্রমিক জনসভা।
এস কে ইউসুফ খুলনা –
আগামী ১৩ জানুয়ারী শুক্রবার আছরবাদ শিরোমণিতে লাঠি মিছিল কর্মসুচি ঘোষণা করা হয়।
খানজাহান আলী থানা প্রতিনিধি: শিরোমণি জুট স্পিনার্সের শ্রমিক কর্মচারীদের বকেয়া পাওনা এবং মিলটি বন্ধ করতে একটি মহলের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে শ্রমিক জনসভা অনুষ্ঠিত। গতকাল শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টায় শিরোমণি কেন্দ্রেীয়  শহীদ মিনার চত্বরে এ শ্রমিক জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। শ্রমিক জনসভা থেকে লাঠি মিছিল কর্মসুচি ঘোষণা করা হয়। শ্রমিক জনসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন আটরা গিলাতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্জ শেখ মনিরুল ইসলাম। বিশেষ  অতিথি ছিলেন খানজাহান আলী থানা মু্িক্তযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা স.ম রেজওয়ান আলী। শ্রমিক নেতা শেখ আবু তালেবের সভাপতিত্বে এবং শ্রমিক নেতা সাহেব আলীর সঞ্চালনায় শ্রমিক জনসভায় বক্তৃতা করেন শ্রমিক নেতা আসাদুজ্জামান আশা, ৩৪নং শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ইকবাল হোসেন, শাহ মনিরুল ইসলাম, গাজী আবুল হাসান, শেখ কেসমত আলী,মীর আফসার আলী। জনসভা থেকে আগামী ১৩ জানুয়ারী শুক্রবার আছরবাদ শিরোমণিতে লাঠি মিছিলের কর্মসুচি ঘোষনা করা হয়।