“মেহেরপুর হোটেল আটলান্টিকায় পুলিশের অভিযানে আটক-৩”


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১, ২০২২, ৮:৩৯ অপরাহ্ন / ২৩৭
“মেহেরপুর হোটেল আটলান্টিকায় পুলিশের অভিযানে আটক-৩”
“মেহেরপুর হোটেল আটলান্টিকায় পুলিশের অভিযানে আটক-৩”
মাজিদ আল মামুন, মেহেরপুর-
প্রেমের ফাঁদে ফেলে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন ও ব্লাকমেইলের অর্থ আদায়ের মুল হোতা মেহেরপুর শহরের অভিজাত শ্রেনীর হোটেল আটলান্টিকার মালিক মতিয়ার রহমান (৫২), তার ছেলে মামুন (৩০) ও অপর একজন ছন্দা খাতুন (৩০) কে গ্রেফতার করেছে মেহেরপুর সদর থানা পুলিশ। বুধবার (৩০ নভেম্বর), ভোররাতে মেহেরপুর সদর থানা পুলিশের একটি টিম মেহেরপুর শহরের আটলান্টিকা হোটেলে অভিযান পরিচালনা করে উক্ত ৩ জনকে গ্রেফতার করেন।
গ্রেফতারকৃত মতিয়ার রহমান মেহেরপুর শহরের শিশুবাগান পাড়ার মৃত কিয়ামদ্দীনের ছেলে এবং হোটেল আটলান্টিকার মালিক, মতিয়ার রহমানের ছেলে মামুন ও মেহেরপুর সদর উপজেলার হিজুলী গ্রামের ছানোয়ার হোসেনের স্ত্রী ছন্দা খাতুন।
মেহেরপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, তিনিসহ সদর থানার তদন্ত অফিসার মেজবাহ উদ্দীন আহমেদ ও সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে মেহেরপুর শহরের অভিজাত হোটেল আটলান্টিকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
তিনি আরো বলেন, একটি নারী চক্র গড়ে তুলে মেহেরপুর শহরের অভিজাত শ্রেণীর হোটেল আটলান্টিকার মালিক মতিয়ার রহমান ও ছেলে মামুন এলাকার সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা, বিভিন্ন এলাকার ব্যবসায়ীসহ ধনাঢ্য ব্যক্তিকে সুন্দরী নারী দিয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন ও ব্লাকমেইল করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছিল। এ চক্রে জেলার বিভিন্ন এলাকার প্রায় ডজন খানেক সুন্দরী নারী রয়েছে। চক্রের নারী সদস্যরা বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও সমাজের ধনাঢ্য ব্যক্তিদের প্রেমের ফাঁদে ফেলে হোটেল আটলান্টিকায় নিয়ে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে তা গোপন ক্যামেরায় ভিডিও ধারণ করে। পরে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়াসহ পত্রিকার পাতায় প্রকাশের হুমকি দেখিয়ে শুরু হয় মোটা অংকের চাঁদাবাজী।
সম্প্রতি মেহেরপুর সদর উপজেলার নারী চক্রের প্রধান হোতা নাজনীন খাঁন প্রিয়াকে আসামি করে প্যানাল কোড ৪১৭/৩৮৫/৩৮৬/৫০৬ ধারায় আমঝুপি গ্রামের মনোয়ার হোসেন একটি মামলা করেন দায়ের করেন। যার মামলা নং ৩২, তারিখ ২২/১১/২০২২। মামলার পর পুলিশ গোপন তথ্য সংগ্রহ করতে শুরু করেন এবং গত ২২ নভেম্বর-২০২২ ব্লাকমেইল করে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার মূল হোতা প্রিয়াকে গ্রেফতার করেন। প্রিয়াকে গ্রেফতারের পর দু’দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হলে হোটেল আটলান্টিকা চক্রের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বেরিয়ে আসে। এ তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার ভোরে হোটেল আটলান্টিকায় অভিযান পরিচালনা করেন পুলিশ এবং হোটেল মালিক মতিয়ার রহমান, ছেলে মামুন ও ছন্দা নামের এক নারীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন সদর থানা পুলিশের টিম। পরে বিকেলের দিকে আটককৃত ৩ জনকে মেহেরপুর আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
মাজিদ আল মামুন
মেহেরপুর প্রতিনিধি
০১৯১৫৩৫১৪৯৮