মাধবপুরে পুসামের উদ্যোগে ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার ও লার্নিং সেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে।


প্রকাশের সময় : জানুয়ারী ১০, ২০২৩, ৬:৩৬ অপরাহ্ন / ৩৩০
মাধবপুরে পুসামের উদ্যোগে ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার ও লার্নিং সেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মাধবপুরে পুসামের উদ্যোগে ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার ও লার্নিং সেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
নাহিদ মিয়া মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি –
পাবলিক ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন অব মাধবপুর( পুসাম) এর উদ্যোগে ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার ও লার্নিং সেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (৯ জানুয়ারী) শাহজালাল সরকারি কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ার ও বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি নির্দেশনা দেয়ার জন্য সেমিনারটির আয়োজন করা হয়েছে।
এ সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এ এন এম মফিজুল ইসলাম,কলেজ গভর্ণিং বডির সদস্য কাজী আরিফুল আম্বিয়া, সহকারী অধ্যাপক এ কে এম নুরুল ইসলাম পুসামের সভাপতি তোফায়েল পাঠান শান্ত । এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পুসামের সদস্য মোদাব্বির হোসন (রাবি),বোরহান উদ্দিন (ঢাবি),সানজিদা সুলতানা (সাস্ট),মোহাম্মদ মিন্টু(জাবি),আহমেদ সবুজ (রাবি)।
পুসামের সভাপতি তোফায়েল পাঠান শান্ত জানান, আমরা মাধবপুরের স্কুল-কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে সার্বিক সহযোগিতা এবং ক্যারিয়ার বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করছি, ভবিষ্যতেও আমাদের এই কার্যক্রমের ধারা অব্যাহত থাকবে। পুসামের এই কার্যক্রমে সবার সাহায্য ও সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।
এ বিষয়ে অধ্যক্ষ এন এম মফিজুল ইসলাম জানান,আমরা অত্যন্ত আনন্দিত যে মাধবপুরের বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা উপজেলার শিক্ষার মান উন্নয়নে এ ধরনের সেমিনার আয়োজন করছে। এটা খুবই ইতিবাচক একটা সামাজিক অগ্রগতি।

উল্লেখ্য ,পাবলিক ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন অব মাধবপুর (পুসাম) ২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে ধারাবাহিক ভাবে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সচেতনতা বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন শিক্ষা সেমিনার আয়োজন করে আসছে।

জগন্নাথপুরে যৌথবাহিনীর অভিযান ঘিরে রাখা বাড়িতে মিলল বিস্ফোরক।
রনি মিয়া, জগন্নাথপুর প্রতিনিধিঃ
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার আশার কান্দি গ্রামে ঘিরে রাখা বাড়িটি থেকে যৌথবাহিনীর অভিযানে বিস্ফোরক তৈরির সরঞ্জামাদি ও অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সকাল ৬টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত আশারকান্দি ইউনিয়নের দিঘলবাক আটঘর গ্রামের আফজাল হোসেনের বাড়িতে এ অভিযান চালানো হয়। তবে এর সঙ্গে জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের এর প্রস্তুতি চলছে, গতকাল সন্ধ্যায় সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানান সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও মিডিয়া) রিপন কুমার মোদক।
যৌথবাহিনী  বাহিনীর উদ্ধার অভিযানে একটি রিভলভার, একটি ল্যাপটপ, নয়টি মোবাইল ফোন, বিস্ফোরক তৈরির বিপুল পরিমাণ সরঞ্জাম ও পাউডার, দুটি ওয়াকিটকি সাদৃশ্য বস্তু ও বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইসসহ দেশি অস্ত্র জব্দ করা হয়।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ৬ ডিসেম্বর জগন্নাথপুর থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মোহাম্মদ নুরে আলম সিদ্দিক আদালতের একটি নন-এফআইআর মামলার সমন জারি করতে আখলাকুর রহমানের, ছেলে সাদিকুর রহমান ওরফে আফজাল হোসেনের (৩৫) বাড়িতে গিয়েছিলেন।
এ সময় আফজাল পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দৌড়ে পালিয়ে যান। তখন এএসআই মোহাম্মদ নুরে আলম সিদ্দিক আফজাল হোসেনের বসতঘরের বিভিন্ন কক্ষে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইস, সাদা পাউডার ও যন্ত্রপাতি দেখতে পান। বিষয়টি থানার ওসিকে ফোনে অবগত করেন। এর পর বাড়িটি ঘেরাও করে রাখে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পরে গতকাল রবিবার পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, স্পেশাল অ্যাকশন গ্রুপ, ঢাকার কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম, এন্টিটেররিজম ইউনিট ও সেনাবাহিনীর বিশেষজ্ঞ টিম এসে যৌথ অভিযান পরিচালনা করে।
বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, সাদিকুর রহমান আফজল একজন পেশাদার সন্ত্রাসী। তিনি ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে সিলেট নগরীর বালুচর এলাকা থেকে আগ্নোয়াস্ত্রসহ গ্রেপ্তার হন।
এ ছাড়াও ২০২১ সালে সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার গোয়ালাবাজার থেকে দুটি পাইপগানসহ র‌্যাব ৯-এর হাতে গ্রেপ্তার হন। তার বিরুদ্ধে সিলেট ও সুনামগঞ্জে একাধিক মামলা রয়েছে।