বেনাপোলে মরা গরুর মাংস বিক্রি করার কারনে এক মাংস বিক্রেতাকে ১ মাসের কারাদণ্ড।


প্রকাশের সময় : নভেম্বর ১৪, ২০২২, ৮:০৭ অপরাহ্ন / ৩৬৪
বেনাপোলে মরা গরুর মাংস বিক্রি করার কারনে এক মাংস বিক্রেতাকে ১ মাসের কারাদণ্ড।

বেনাপোলে মরা গরুর মাংস বিক্রি করার কারনে এক মাংস বিক্রেতাকে ১ মাসের কারাদণ্ড।

আঃজলিল, স্টাফ,রিপোর্টারঃ–

বন্দর নগরী বেনাপোলে মরা গরুর মাংস বিক্রির করার কারনে আলম কসাই(৪০) নামের এক মাংস বিক্রেতাকে ১ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। রবিবার (১৩ নভেম্বর ) সকালে বেনাপোল বাজারস্থ গোস পট্টি এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা কালীন সময়ে অভিযুক্তকে আটক করেন বেনাপোল পোর্টথানা পুলিশ। এসময় বেনাপোল পৌরসভার স্যানেটারি ইন্সেপেক্টর রাশিদা খাতুনসহ পৌরসভার অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন শার্শা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা ইসলাম।

বেনাপোল পৌরসভার স্যানেটারি ইন্সেপেক্টর রাশিদা খাতুন জানান, সকালে গোপন সংবাদে জানতে পারি যে, বেনপোল বাজারে একটি মরা গরু জবাই করে, তা অন্য গোসের সাথে মিশিয়ে বিক্রির উদ্দেশ্যে গোস পট্রি এলাকার দোকানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এমন সংবাদে বেনাপোল পৌরকর্তৃপক্ষ বাজারে অভিযান চালিয়ে মানিক কসাই সহ ঐ গরুর মাংস জব্দ করা হয়। তবে এর সাথে জড়িত মানিক কসাই এর ভাই আলম কসাই পালিয়ে যায়। এসিল্যান্ড ম্যাডামকে বিষয়টি তাৎক্ষনিক অবহিত করা হয়।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা ইসলাম বলেন, অভিযুক্ত মানিক কসাই প্রাথমিক ভাবে তার অপরাধ স্বীকার করাই ভ্রাম্যমান আদালতে তাকে ৫ হাজার টাকা জড়িমানা সহ মরা গরুর মাংস নিয়ে আসা তার আপন ভাই আলম কসাইকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। অভিযানে জব্দকৃত মরা গুরুর মাংস মাটিতে পুতে ফেলা হবে বলে তিনি আরো জানান। উল্লেখ্য যে, খোলা বাজারে মাংস বিক্রির দায়ে আরো ২জন কসাইকে সর্বমোট ২০ হাজার টাকা জড়িমানা করা হয়।

প্রেরক,

আঃজলিল

নিউজ প্রকাশের পর  শার্শার বাগআঁচড়ায় ফিরে  পেল সদ্য জন্ম নেওয়া সেই নবজাতক।

আঃজলিল, স্টাফ রিপোর্টারঃ–

অবশেষে নিউজ প্রকাশের পর যশোরের শার্শার বাগআঁচড়ায় নিজ জন্মভিটা মায়ের কোল ফিরে পেল সদ্য জন্ম নেওয়া সেই নবজাতক।

যশোরের শার্শার বাগআঁচড়ায় বাচ্চা বিক্রির অভিযোগ, এমন ধরনের সংবাদ বিভিন্ন অন লাইন নিউজ পোর্টাল ও সাংবাদিকদের ফেসবুক আইডিতে প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসে ঐ বাচ্চার পরিবার। নিউজ প্রকাশের কয়েক ঘন্টা পরে তারা বাচ্চাটিকে ফিরিয়ে নিয়ে আসে।

উলেখ্য, ১২ই নভেম্বর (শনিবার) সকালে সদ্য জন্ম নেওয়ার ১ ঘন্টার মধ্যে নবজাতক বাচ্চাকে অন্য নিঃসন্তান দম্পত্তিকে দিয়ে দেয় পরিবার এবং অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে বাচ্চাটিকে অন্যের কাছে হস্তান্তর করেছে বলে অভিযোগ উঠে ঐ পরিবারের উপর। পরিবারও অর্থ লেনদেনের বিষয়টি অস্বীকার করে।

অবশেষে সব অভিযোগ জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নবজাতক বাচ্চা এখন তার নিজ পরিবার ও মায়ের কোলে।

প্রেরক,

আঃজলিল