নোয়াখালীর হাতিয়ায় নির্বাচনী ফলাফল জালিয়াতির অভিযোগে প্রিজাইডিং অফিসার ও কথিত বিজয়ী প্রার্থীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা। 


প্রকাশের সময় : মার্চ ২, ২০২৩, ৬:২৩ অপরাহ্ন / ১৪৩
নোয়াখালীর হাতিয়ায় নির্বাচনী ফলাফল জালিয়াতির অভিযোগে প্রিজাইডিং অফিসার ও কথিত বিজয়ী প্রার্থীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা। 
নোয়াখালীর হাতিয়ায় নির্বাচনী ফলাফল জালিয়াতির অভিযোগে প্রিজাইডিং অফিসার ও কথিত বিজয়ী প্রার্থীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা।         
স্টাফ রিপোর্টার –
নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে একটি কেন্দ্রে ফলাফল জালিয়াতি করে পরাজিত প্রার্থীকে বিজয়ী করার অভিযোগে ওই কেন্দ্রের  প্রিজাইডিং অফিসার মোঃ আবু সোলাইমান( প্রধান শিক্ষক জাহাজমারা উচ্চ বিদ্যালয়) ও কথিত বিজয়ী সংরক্ষিত মহিলা সদস্য শেফালী বেগমের বিরুদ্ধে দুদকে মামলা রুজু করা হয়েছে। মামলা নং ১, তাং ২৮/২/২০২৩। দুর্নীতি দমন কমিশন নোয়াখালী কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক আরিফ  আহমদ বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন এবং দন্ডবিধি ৪২০/৪৬৭/৪৬৮/৪৭১/১০৯ ধারা তৎসহ‌ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা অনুযায়ী  মামলা টি গ্রহণ করেছেন নোয়াখালী দুদক কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক চৌধুরী বিশ্বনাথ আনন্দ।গত ২২/৩/২০১৬ তারিখে অনুষ্ঠিত নোয়াখালী জেলার হাতিয়া উপজেলার ৯ নং বুড়িরচর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উক্ত ইউনিয়নের ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডের সমন্বয়ে ২ নং সংরক্ষিত মহিলা আসনে নয়ন বেগম (সূর্যমুখী ফুল মার্কা) ,শেফালী বেগম( হেলিকপ্টার মার্কা) ও নাছিমা আক্তার (বই মাকা) নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।  উক্ত নির্বাচনে দুই নং সংরক্ষিত মহিলা আসনের জন্য মোট পাঁচটি ভোট কেন্দ্র ছিল। প্রার্থী নয়ন বেগম অভিযোগ করেন , চারুবালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে তার নির্বাচনী প্রতীক সূর্যমুখী ফুলে ভোট পড়েছে ২৩১ টি এবং প্রতিদন্ধী প্রার্থী শেফালী বেগমের হেলিকপ্টার প্রতীক কে ভোট পড়েছে ৫০০টি । কিন্তু ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার হেলিকপ্টার প্রতীকে ৫০০ ভোটের স্থলে  ৫৫০ ভোট দেখিয়ে ৫ টি কেন্দ্রে মোট ১২ ভোটে নয়ন বেগম কে   পরাজিত দেখান এবং শেফালী বেগমকে বিজয়ী ঘোষণা করেন। এতে বিতর্কিত কেন্দ্রের পুন ভোট গণনার জন্য নয়ন বেগম বাদী হয়ে বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারী জজ আদালত নোয়াখালী নির্বাচন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন ।মামলা নং ১/ ২০১৬  ‌।আদালত  উক্ত মামলার বিচার শেষে ১৫/৫/ ২০১৭ তারিখের রায় প্রদান করেন । উক্ত রায়  পর্যালোচনায় দেখা যায়, চারুবালা সরকারি‌ প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসার কর্তৃক ভোট জালিয়াতির বিষয় প্রমাণিত হয় । আদালত কর্তৃক ৫ কেন্দ্রে ভোট গণনায় নয়ন বেগম( সূর্যমুখী ফুল মার্কা) পেয়েছেন ২২ ৫৮ ভোট এবং  শেফালী বেগম (হেলিকপ্টার মার্কা) পেয়েছেন ২২২০ ভোট।এই ঘটনায় দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার মোঃ আবু সোলাইমান ( প্রধান শিক্ষক, জাহাজমারা উচ্চ বিদ্যালয়) ও প্রার্থী শেফালী বেগম পরস্পর যোগসাজশে অবৈধভাবে একে অপরকে লাভবান করা উদ্দেশ্যে প্রতারণা, জাল জালিয়াতি, ও ক্ষমতার  অপব্যবহার করার অপরাধে দুদকে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং ১ তাং ২৮/২/২০২৩।