নীলফামারীর ডিমলায় নাবী পাট বীজ চাষীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৬, ২০২২, ৮:৫১ অপরাহ্ন / ৩৫১
নীলফামারীর ডিমলায় নাবী পাট বীজ চাষীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 
নীলফামারীর ডিমলায় নাবী পাট বীজ চাষীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 
মোঃ হাবিবুল হাসান হাবিব, ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি :
“সোনালী আঁশে সোনার দেশ, পাট পন্যে বাংলাদেশ” এবারের এই প্রতিপাদ্যে নীলফামারীর ডিমলায় আর্দশ নাবী পাট বীজ চাষীদের মাঝে উন্নত প্রযুক্তি নির্ভর পাট ও পাট বীজ উৎপাদন প্রকল্পের বাস্তবায়নে পাট অধিদপ্তর, বস্ত্র  ও পাট মন্ত্রনালয় কর্তৃক ডিমলা নীলফামারীর আয়োজনে চাষীদের সাথে এক দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) উপজেলা পরিষদ হলরুমে দিনব্যাপী এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপজেলার ১০ ইউনিয়নের পঞ্চাশ জন আদর্শ পাটচাষী কর্মশালায় অংশ গ্রহন করেন।
উপজেলা পাট উন্নয়ন উপ-সহকারী কর্মকর্তা দরিবুল্লাহ্ সরকারের সঞ্চলনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন এর সভাপতিত্বে  প্রশিক্ষনের উদ্বোধন ঘোষনা করেন। প্রশিক্ষণে সল্প খরচে গুনগত মানসম্পন্ন ভালো জাতের পাটবীজ, সার সংগ্রহ করার বিষয়ে ও দেশীয় প্রযুক্তিতে উন্নত মানের পাট চাষ সর্ম্পকে অভিজ্ঞতা বিনিময় করা হয় কর্মশালায়।
কর্মশালার এক পর্যায়ে নারী-পুরুষ উপস্থিত চাষীদের মধ্যে উন্মুক্ত আলোচনা করা হয়। এসময় প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত থেকে নীলফামারী জেলা পাট কর্মকর্তা এটিএম তৈবুর রহমান প্রশিক্ষনার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জমিতে উন্নত মানের পাটবীজ ব্যবহার করা হলে বিঘা প্রতি ১২ থেকে ১৬ মন সোনালী আঁশের পাট উৎপাদন করা সম্ভব। কর্মশালার এক পর্যায়ে প্রশিক্ষকরা বলেন, এ জন্য নীতিনির্ধারক ও সরকারের কঠোর আইন প্রয়োগে বাজারে ভালো মানের ও ভেজাল মুক্ত বীজ পাওয়া সম্ভব হবে।
কর্মশালায় উপস্থিত থেকে শিক্ষনীয় বিষয়ে আলোচনা করেন, আবু বক্কর সিদ্দিক, উপ পরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর,নীলফামারী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সেকেন্দার আলী। কর্মশালায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলার স্থানীয় সাংবাদিক বৃন্দ।