নওগাঁর বদলগাছীতে  সরিষার হলুদ ফুলে কৃষকের মুখে হাসি,সরিষা চাষে আগ্রহী কৃষকরা।


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২৪, ২০২২, ৬:৪৭ অপরাহ্ন / ৩৪৩
নওগাঁর বদলগাছীতে  সরিষার হলুদ ফুলে কৃষকের মুখে হাসি,সরিষা চাষে আগ্রহী কৃষকরা।
নওগাঁর বদলগাছীতে  সরিষার হলুদ ফুলে কৃষকের মুখে হাসি,সরিষা চাষে আগ্রহী কৃষকরা।
বুলবুল আহম্মেদ বুলু, বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
বদলগাছী উপজেলার বিভিন্ন মাঠে মাঠে সবুজের মাঝে ফুটে আছে হলুদ সরিষা ফুল। শীতের হাওয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে সুবাস। মধু আহরণে ফুলে ফুলে বসছে মৌমাছি। সেই সাথে সরিষার হলুদ ফুলে মনোমুগ্ধকর হয়ে ছবি তুলছেন কোমলমতি শিশু সহ সকল বয়সী নারী পুরুষ। যত দূর চোখ যায় হলুদের সমারোহ। এই মৌসুমে বদলগাছী উপজেলায় রেকর্ড পরিমান জমিতে সরিষা চাষাবাদ করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে কৃষকেরা সরিষার বাম্পার ফলনের আশা করছেন।
উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রা ছিল  ১০৪৫ হেক্টর জমিতে তা অর্জিত হয়ে অতিরিক্ত ২০৫হেক্টর জমিতে  সরিষ আবাদ হয়েছে। শুরুর দিকে সরিষা খেতে পোকামাকড়ের আক্রমণ দেখা দিয়েছিল। কিন্তু কৃষকদের নিবিড় পরিচর্যা এবং মাঠপর্যায়ে কৃষি কর্মকর্তাদের পক্ষ থেকে যথাযথ পরামর্শ ও প্রত্যক্ষ কারিগরি সহযোগিতার কারণে তা প্রতিহত করা সম্ভব হচ্ছে। এখন কৃষকেরা সরিষার বাম্পার ফলনের আশা করছেন।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার মথুরাপুর, আধাইপুর মিঠাপুর, পাহাড়পুর ও কোলা বিলাশ বাড়ি ইউনিয়নের মাঠগুলোতে চোখে পড়ার মত সরিষার ক্ষেত। আধাইপুর ইউপির  উত্তর আধাইপুর  গ্রামের শহিদুল সাধু বলেন ‘আমি এ বছর দুই বিঘা জমিতে সরিষার চাষ করেছি। কৃষি অফিস থেকে অল্প বীজ পেয়েছি। পরে আমি নিজে বাজার থেকে সরিষার বীজ কিনে জমিতে সরিষা বীজ বপন করি। প্রতিটি সরিষাগাছে প্রচুর পরিমাণ ফুল ধরেছে। ফুলগুলো আকারেও বড় হয়েছে। মনে হচ্ছে, এবার সরিষার ফলন ভালো পাব। সময়মতো সরিষা তুলে বিক্রি করতে পারলে বাড়তি কিছু টাকা আসবে। এতে পুরোদমে ইরি-বোরো চাষ করতে পারব।’
উপজেলার মথুরা পুর ইউনিয়নের  দুর্গাপুর গ্রামের সকেন হোসেন বলেন, ‘চলতি মৌসমে আমি ৩বিঘা ধানী জমিতে সরিষা লাগিয়েছি। এই বছর আবহাওয়া ভালো থাকায় ভালো ফলনের আশা করছি। বাজারেও সরিষার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। নিজ পরিবারের তেলের যোগান দিতেই আমি সরিষার চাষ করি। বাড়তি আয়ের জন্য।’ উপজেলা কৃষি অফিসার সাবাব ফারহান বলেন, ‘চলতি মৌসুমে বদলগাছী উপজেলার আটটি ইউনিয়নে ব্যাপক সরিষার আবাদ হয়েছে। লক্ষমাত্রার ছাড়িয়ে ২০৫হেক্টর  জমিতে বেশী সরিষা চাষাবাদ করা হয়েছে। ফলন ভালো হলে প্রতি বিঘা জমিতে ৫ থেকে ৬ মন সরিষা ফলন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর পাশাপাশি কৃষকেরা অন্যান্য আবাদে ও ঝুঁকেছেন। যথাসময়ে জমি চাষযোগ্য হওয়ায় এলাকার কৃষকেরা সুযোগ বুঝে সরিষা চাষ করেছেন। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে তাঁদের যথাযথ পরামর্শ ও পরিচর্যার বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগে কোনো ধরনের ক্ষতি না হলে এ উপজেলায় সরিষার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।
বুলবুল আহম্মেদ
বদলগাছী নওগাঁ প্রতিনিধি