দোয়ারাবাজারের ঐতিহ্যবাহী বাংলাবাজারে নান্দনিক পোশাক নিয়ে ‘ভুইয়া বেবী শপ এন্ড থ্রি পিচ’র শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।


প্রকাশের সময় : মার্চ ৯, ২০২৩, ৭:৩২ অপরাহ্ন / ৩৮০
দোয়ারাবাজারের ঐতিহ্যবাহী বাংলাবাজারে নান্দনিক পোশাক নিয়ে ‘ভুইয়া বেবী শপ এন্ড থ্রি পিচ’র শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।
দোয়ারাবাজারের ঐতিহ্যবাহী বাংলাবাজারে নান্দনিক পোশাক নিয়ে ‘ভুইয়া বেবী শপ এন্ড থ্রি পিচ’র শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।
দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি:
মোঃজুয়েল মিয়া
01750-981518
দোয়ারাবাজারের ঐতিহ্যবাহী বাংলাবাজারে আধুনিক রুচি সম্পন্ন নান্দনিক ডিজাইনের বিপুল পোশাকের সমাহার নিয়ে  ‘ভুইয়া বেবী শপ এন্ড থ্রি পিচ’ নামক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার  (৮ মার্চ) সন্ধায় বাংলাবাজার ইউপি চেয়ারম্যান রোটারিয়ান শেখ আবুল হোছাইন আনুষ্ঠানিকভাবে ফিতা কেটে ভুইয়া বেবী শপ এন্ড থ্রি পিচের  শুভ উদ্বোধন করেন৷
এর আগে এ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন বাংলাবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব ও ইমাম মাওলানা হোসাইন আহমেদ।  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য আব্দুল ওয়াদুদ ভুইয়া,বাশতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফারুক মিয়া,কান্দাগাও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ ইমাম হোসেন,   উপজেলা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি এম এ মোতালিব ভুইয়া,যুগ্ম সম্পাদক সোহেল মিয়া,সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন মুন্সি, দপ্তর সম্পাদক আবু তাহের, ব্যবসায়ী বাবুল মিয়া,বশির আহমেদ, কবির হোসেন,জয়নাল আবেদন, আফসর উদ্দিন, শামসুল ইসলাম, আরিফ মিয়া,রবিন মিয়াসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, বাজারের ব্যবসায়ী  বৃন্দ ৷
উদ্বোধনকালে বাংলাবাজার ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আবুল হোছাইন বাংলাবাজারের  বিশ্বমানের পোষাক নিয়ে ভুইয়া বেবী শপ এন্ড থ্রি পিচ’ নামক শপের যাত্রা শুরু করায় এ প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এখন থেকে এ প্রতিষ্ঠান থেকে সিলেট শহরে না গিয়ে শিশু- কিশোরদের যাবতীয় পোষক অন্যান্য সামগ্রী কেনার জন্য ক্রেতাদের প্রতি আহবান জানান৷
বেবি শপের স্বত্তাধিকারীব বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো:শাহজাহান ভুইয়া জানান, এতদিন বাংলাবাজারে আলাদা পরিসরে বাচ্চাদের কোন ভালো মানের পোষাকের দোকান ছিল না। সেটি মাথায় রেখে ক্রেতারা যাতে করে ভুইয়া বেবী শপ এন্ড থ্রি পিচ’ থেকে আধুনিক রুচি সম্পন্ন নতুন নতুন ডিজাইনের যাবতীয় পোষাক সুলভ মূল্যে কিনতে পারেন এজন্য প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হয়েছে। তিনি ক্রেতাদের সিলেটে না গিয়ে এখান থেকে যাবতীয় শিশুদের পোষাক কেনার জন্য আহবান জানান ৷
জগন্নাথপুরে সংখ্যালঘু লোকদের রাস্তা দিয়ে চলাচলে বাঁধা থানায় অভিযোগ দায়ের।
রনি মিয়া, জগন্নাথপুর প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের একটি গ্রামে সংখ্যালঘু লোকদের চলাচলে বাঁধা দেওয়া হচ্ছে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার (৬মার্চ) দুপুরে জগন্নাথপুর থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মিরপুর ইউনিয়নের লহরী গ্রামের মৃত বন বিহারী রায়ের ছেলে বিকেশ রায়ের সাথে একই গ্রামের মৃত আলা উদ্দিনের ছেলে রাজেল মিয়া সহ তাদের লোকজনের সাথে বিরোধ চলে আসছে।
রবিবার সকাল অনুমান ১০ঃ ৩০ মিনিটের দিকে বিকেশ রায়ের বাড়ীতে ট্রাক ড্রাইভার রিপন মিয়া ইট নিয়ে আসছিলেন। এ সময় রাজেল মিয়া সহ তাদের লোকজন ট্রাক ভর্তি ইট নিয়ে যেতে বাঁধা প্রদান করে।
পরে স্থানীয়রা ট্রাকটি উদ্ধার করে মাল নিয়ে যেতে সহযোগিতা করেন। এ ব্যাপারে বিকেশ রায় জানান, আমি অসহায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ। আমার রাজেল মিয়া সহ তাদের লোকদের সাথে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে নিয়ে বিরোধ চলে আসছে।
রবিবার সকালে আমার বসত ঘর নিমার্ণের জন্য ট্রাক ভর্তি ইট নিয়ে আসার সময় আমার প্রতিপক্ষের লোকজন বাঁধা দেয়, অসহায় হয়ে প্রশাসনের কাছে আসছি। আমি বর্তমান সরকার সহ প্রসাশনের সহযোগিতা কামনা করি।
এ ব্যাপারে জানতে অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা জগন্নাথপুর থানার এসআই শহিদ এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে একটি অভিযোগ ওসি স্যারের টেবিলে আছে। আমার কাছে অভিযোগ আসলে তদন্ত করা হবে।