দেশের সর্ববৃহৎ ক্রীড়া আসরে বিচারকদের শপথ বাক্য পাঠ করানোর জন্য মনোনীত হয়েছেন ফিফা রেফারি সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান তৈয়ব হাসান বাবু। 


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২৩, ২০২৩, ৭:২৩ অপরাহ্ন / ৬৬১
দেশের সর্ববৃহৎ ক্রীড়া আসরে বিচারকদের শপথ বাক্য পাঠ করানোর জন্য মনোনীত হয়েছেন ফিফা রেফারি সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান তৈয়ব হাসান বাবু। 

দেশের সর্ববৃহৎ ক্রীড়া আসরে বিচারকদের শপথ বাক্য পাঠ করানোর জন্য মনোনীত হয়েছেন ফিফা রেফারি সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান তৈয়ব হাসান বাবু। 

আজমাইন ইখতেদার তুরাজ, সাতক্ষীরা:

দেশের ক্রীড়াঙ্গনের সর্ববৃহৎ আসর ২য় শেখ কামাল যুব গেমস আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি হতে
ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। দেশের এই সর্ববৃহৎ ক্রীড়া আসরের
বিচারকদের শপথ বাক্য পাঠ করানোর জন্য মনোনীত হয়েছেন রাষ্ট্রীয়
পুরস্কারপ্রাপ্ত সাবেক ফিফা এলিট রেফারি সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান
তৈয়ব হাসান বাবু। বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন তাঁকে
এই সম্মানজনক দায়িত্ব অর্পণ করেছে। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে এ গেমসের শুভ
উদ্বোধন করবেন।বরেণ্য রেফারি তৈয়ব হাসান বাবু বাংলাদেশের
ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সময় ১৮ বছর আন্তর্জাতিক অঙ্গনে
ফিফা রেফারী হিসেবে দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তিনিই
সবচেয়ে বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনা করেন (১০০+)। দেশের
ইতিহাসে প্রথম ও একমাত্র ইন্টারন্যাশনাল রেফারী অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত
(এএফসি রেফারীজ মোমেন্তো অ্যাওয়ার্ড), এশিয়ার সেরা ২৫
রেফারীর তালিকায় থাকা প্রথম সাউথ এশিয়ান রেফারী হিসেবে সাফ
চ্যাম্পিয়ানশীপের ফাইনাল ম্যাচে (নেপাল-২০১৩) তিনি প্রধান
রেফারীর দায়িত্ব পালন করেছেন। রেফারী হিসেবে তিনি সর্বাধিক
বার বহু দেশে প্রতিনিধিত্ব করেন।খেলাধুলাকে ভালোবাসা এমন
বিখ্যাত রেফারি তাঁর সুদীর্ঘ রেফারিং জীবনে প্রথম সাউথ
এশিয়ান রেফারী হিসেবে সাফ চ্যাম্পিয়নশীপের ফাইনালে যে
জার্সিটি পরে তিনি রেফারীর দায়িত্ব পালন করেন স্মরণীয় সেই
্য়ঁড়ঃ;রেফারী জর্সিট্য়িঁড়ঃ; ৫ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা নিলামে বিক্রি করে
তিনি করোনা ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সাহায্যার্থে প্রদান করেন।
করোনা দুর্যোগে এমন মহৎ কাজের জন্য তৈয়ব হাসান দেশ-বিদেশে
প্রসংসিত হয়েছেন। ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনোও

স্বয়ং তাঁকে অভিনন্দন জানিয়ে পত্র প্রেরণ করেন। তিনি রাষ্ট্রীয়
সর্বোচ্চ ক্রীড়া পদক – জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার ভূষিত হন। পুরস্কারের
অর্থ এক লক্ষ টাকা তিনি স্থানীয় দু:স্থ-পুষ্টিহীন শিশুদের কল্যাণে
ব্যয় করার ঘোষণা করেন। রেফারিং-এ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ
বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি, বাংলাদেশ স্পোর্টস জার্নালিস্ট
এসোসিয়েশন, সোনালী অতীত ক্লাব, ঢাকাসহ বিভিন্ন সংস্থা-
প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ইতোপূর্বে তাঁকে পুরস্কৃত করা হয়।