“দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার ধান ক্ষেত হতে ভাংগারি ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার”


প্রকাশের সময় : নভেম্বর ১৪, ২০২২, ৭:০০ অপরাহ্ন / ২৭৪
“দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার ধান ক্ষেত হতে ভাংগারি ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার”

“দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার ধান ক্ষেত হতে ভাংগারি ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার”

শফিকুল ইসলাম সোহাগ,  দিনাজপুর –
দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার  গোয়ালডিহি ইউনিয়নের বেলানপাড়া ও দেওয়ানীপাড়ার মধ্যস্থলের
শহিদুল ইসলামের ধানক্ষেত থেকে  একরামুলের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ১৩ নভেম্বর রবিবার সকালে ভুট্টা চাষী মিজানুর রহমান নিহত ব্যক্তির মরা দেহ দেখতে পান। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ছুটে আসেন এলাকাবাসী। পরে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। জানা যায়, নিহত একরামুল হক  উপজেলার ৬ নং গোয়ালডিহি ইউনিয়নের তেলিপাড়া গ্রামের ঘটু মিয়ার ছেলে। একরামুল হক পুলেরহাটে ও উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের ফেরি করে ভাংগিরী সংগ্রহ ও বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য বিক্রি করতেন।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকাল আটটায় তিনি বাড়ি থেকে বের হন ব্যবসার উদ্দেশ্যে প্রতিদিনের ন্যায় গ্রাম শেষ করে পুলেরহাট বাজারে ভ্যান রেখে নিখোঁজ হন একরামুল।
কৃষক মিজানুর রহমান বলেন, আমি সর্বপ্রথম ব্যক্তিটিকে দেখতে পাই প্রথমে ভাবছিলাম একটি পাগল ঘুমাচ্ছে। ঘন্টা ব্যাপী সাড়া না পাওয়ায় কাছে গিয়ে দেখি মৃত্যুদেহ পড়ে আছে। পরে আমি এলাকাবাসীকে খবর দেই। মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য মৃতদেহ দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।  ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে এলেই প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। তবে এলাকাবাসী ও পরিবারের দাবি এটি হত্যাকান্ড। এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান সাওখায়াত হোসেন লিটন বলেন, এটি একটি হত্যাকান্ড বলে ধারণা করা হচ্ছে। আমরা ময়না তদন্তের জন্য পাঠাচ্ছি। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে এলেই প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।তদন্ত কর্মকর্তা তাওহিদুল ইসলাম বলেন, সিআইডি ক্রাইম সিন পার্টি এসেছে উনারা তদন্ত করছেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করা হয়েছে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বীরগঞ্জ সার্কেল) খোদাদাদ সুমন,থানা অফিসার ইনচার্জ চিত্ত রঞ্জন রায়, থানা তদন্ত কর্মকর্তা তাওহিদুল ইসলাম ও সিআইডি ক্রাইম সিন পার্টি।