জয়পুরহাট  কালাইয়ে চাকুরী দেয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেফতার-১। 


প্রকাশের সময় : জানুয়ারী ১, ২০২৩, ৬:৩১ অপরাহ্ন / ৫২৭
জয়পুরহাট  কালাইয়ে চাকুরী দেয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেফতার-১। 
জয়পুরহাট  কালাইয়ে চাকুরী দেয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেফতার-১। 
মোঃ জাহিদুল ইসলাম কালাই (জয়পুরহাট) সংবাদদাতা :
জয়পুরহাট  কালাইয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে বিভিন্ন পদে চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে ও ভূয়া নিয়োগপত্র প্রদানের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক চক্রের মূলহোতা আব্দুল বারিক বাকী (৫০) কে গ্রেফতার করেছে জয়পুরহাট র‍্যাব-৫।
শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) বেলা প্রায় ১২ টার সময় মোলামগাড়ী বাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।
আব্দুল বারিক বাকী (৫০) উপজেলার কাদিরপুর গ্রামের আইজ উদ্দিন এর ছেলে। গ্রেফতার কৃত আসামী কাছথেকে ৯ টি ভূয়া নিয়োগপত্র ও ১টি মোবাইল পাওয়া যায়।
র‍্যাব জানায়, আব্দুল বারিক বাকী ৩ জনের একটি সিন্ডিকেটের মূলহোতা ২০১৭ সাল থেকে দরিদ্র লোকদের সাথে প্রতারণামূলক কর্মকান্ড করে আসছে। তারা অবৈধ নিয়োগের মিথ্যা আশা দিয়ে বা কখনও কখনও ভূয়া নিয়োগপত্র প্রদান করে প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিত।
কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোঃ মোস্তফা জামান, তিনি ২০২১ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার জন্য দুই প্রার্থীর কাছ থেকে টাকা নেন এবং ভুয়া নিয়োগপত্র দেন। পরে ওই পদে যোগ দিতে যাওয়ার সময় দুই প্রার্থী তাদের ভুয়া নিয়োগপত্রের কথা জানতে পারেন। বিষয়টি র‍্যাবের নজরে আসলে ৯টি ভূয়া নিয়োগপত্রসহ র‌্যাব-৫  তাকে আটক করেন। আসামীর বিরুদ্ধে কালাই থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
মোঃ জাহিদুল ইসলাম
কালাই, জয়পুরহাট
০১৭৮৫-৩৫২৫৫৮
৩১ ডিসেম্বর/২২
পাঁচবিবিতে ঘন কুয়াশায় জনজীবন বিপর্যস্ত বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষেরা ভোগান্তির চরমে ।
মো:আমজাদ হোসেন স্টাফ রিপোর্টার জয়পুরহাট –
৩১, ১২, ২০২২ ইং
জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলাতে প্রায় কযেক দিন যাবৎ ভোর থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশা ঘেরা  চাদরে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে । ছোট ছোট অনেক শিক্ষার্থীদের স্কুল ও মাদ্রাসা নামক শিক্ষাঙ্গনে যেতে  পারছে না ।বিশেষ করে খেটে খাওয়া মানুষেরা আজ আধাবেলা থাকে বেকারের মতোই । পৌষের ঘন  কুয়াশায় শীত জেগে বসেছে গ্রামগুলোতে ।বয়স্ক লোকজন ঘনকুয়াশায় ঠান্ডা জনিত রোগ থেকে রক্ষা পেতে দরজা জানালা   লাগিয়ে লেপ কিংবা কম্বল মুড়িয়ে নিজেকে রক্ষা চেষ্টা চালায়। শিশুরা যেন অসুস্থ হয়ে না পড়ে এজন্য পিতা মাতারা  তাদের সাধ্য অনুযায়ী যত্ন চালিয়ে যাচ্ছে ।অনেকেই আজ বাজারে না গিয়ে ফ্রিজে রাখা মাছ ও মাংস তরকারি দিয়ে রান্না কাজ সেরেছেন ।মহিলারা রান্না ঘরে না গিয়ে ঘরের ভিতরে গ্যাসের রান্না করতে দেখা যায়।ঘনকুয়াশায় হারিয়ে গেছে যেন স্বচ্ছ পরিস্কার নীল আকাশ সড়ক ও জনপথ। উপজেলা জুড়ে রাস্তা ঘাট সড়ক মহাসড়কের নদী পথে চোখে মেললে দৃষ্টিসীমা ঘনকুয়াশা আটকে যায় ।আটক গিয়ে সূর্যের আলো ও তেজ উত্তর পশ্চিমে দিকের হিমেল হাওয়া বাতাসে কাঁপছে পুরো উপজেলা ।গত মঙ্গলবার ২৭ ডিসেম্বর মধ্য রাত থেকে সকাল১২ টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকে এ উপজেলা । আধাবেলা  পর্যন্ত  সূর্যের দেখা মেলে না ।দিনের  বেলায় হেডলাইট জানিয়ে যানবাহন চলাচল করছে সড়ক মহাসড়কের দিয়ে ।তবে দেরিতে হলেও ডিসেম্বর মাসের শেষ ভাগে এ উপজেলায় কনকনে শীতের প্রকাশ ঘটল মঙ্গলবার  সকালে কালাই, ক্ষেতলাল, আক্কেলপুর, ও  জয়পুরহাট সদর ঘুরে দেখা যায় একই চিত্র  ।তবে কুয়াশায় মধ্যে ও থেমে নেই  কর্মজীবি  মানুষের চলাচল এই  ঠান্ডার মধ্যে ও সকালে কৃষকরা মাঠে কাজ করতে দেখা যায় ।বেলা বারার সাথে সাথে এই বছরের শেষ  সপ্তাহের  কর্মদিবসে অফিসগামী মানুষের ভিড় দেখা যায় সড়ক গুলোতে এবং সড়কে গাড়ির  চাপ পড়ে ।তবে ধীর গতিতে  যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে ।
এদিকে  আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে সারা দেশে শেষ রাত থেকে সকাল পর্যন্ত ঘন কুয়াশা ও মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে । এতে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিপর্যয়ের মূখে পরলেও এখনো সূরক্ষিত রয়েছে উপজেলা  স্বাস্থ্য ও কৃষি বিভাগ। তবে এই অবস্থা চলতে থকলে জনজীবন ব্যাহত হওয়া ছাড়াও আলু ও সরিষাসহ শীত কালীন সাক-সবজির ক্ষেতে ছত্রাকসহ ঠান্ডাজনিত বিভিন্ন রোগ-বালাইয়ের আক্রমন হতে পারে। এ ছাড়া সর্দ্দি, র্জর কাশি ছাড়াও করোনা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে বলে জানিয়েছে কৃষি ও স্বাস্থ্য বিভাগ।