“চট্টগ্রামে আয়কর আদায় দেড়শ কোটি টাকা”


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৩, ২০২২, ৮:৪৩ অপরাহ্ন / ৫৫৬
“চট্টগ্রামে আয়কর আদায় দেড়শ কোটি টাকা”

“চট্টগ্রামে আয়কর আদায় দেড়শ কোটি টাকা”
মোঃ ইব্রাহিম শেখ চট্টগ্রাম ব্যুরো:

আয়কর সেবা মাস হিসেবে নভেম্বরে চট্টগ্রামে দুই লাখ ৬৮ হাজার মানুষ সেবা
গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছে আয়কর বিভাগ। পুরো মাসে চট্টগ্রামের চারটি কর অঞ্চলে ১ লাখ ৭১ হাজার ৪৯১
জন আয়কর রিটার্ন জমা দিয়েছেন। এসব রিটার্নের বিপরীতে ১৪৭ কোটি ৯৪ লাখ ৭৬ হাজার ৬০৭ টাকা আদায়
হয়েছে।
তাদের মধ্যে নতুন ইটিআইএন গ্রহণকারী রয়েছেন ১১ হাজার ৫৭৫ জন। সর্বশেষ, ৩০ নভেম্বর (বুধবার)
একদিনেই রিটার্ন জমা দিয়েছেন ২৪ হাজার ৬০৯ জন। এতে আয়কর আদায় হয়েছে ৩৬ কোটি ৪৪ লাখ ৭৭
হাজার ৫৭১ টাকা। এদিন ইটিআইএন গ্রহণ করেছেন ৬৮৮ জন।
চট্টগ্রাম আয়কর বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ১ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ৯১ হাজার ৯১৮
জন সেবা নিয়েছেন কর অঞ্চল-৪ থেকে। তবে সবচেয়ে বেশি ৫২ হাজার ৬০২ জন আয়কর রিটার্ন জমা দিয়েছেন
কর অঞ্চল-১ এ। আয়ের ক্ষেত্রেও এগিয়ে রয়েছে কর অঞ্চল-১।
আয়কর বিভাগ আরও জানিয়েছে, কর অঞ্চল-১ এ সেবা নিয়েছেন ৬০ হাজার ৬১৭ জন। এই কর অঞ্চলে রিটার্ন
জমা পড়েছে ৫২ হাজার ৬০২টি। রিটার্নের সঙ্গে আয়কর আদায় হয়েছে ৪৬ কোটি ৪৯ লাখ ৫০ হাজার ৪৩২
টাকা। নতুন ই-টিআইএন নিয়েছেন ৪ হাজার ৪৬ জন।
কর অঞ্চল-২ এ সেবা নিয়েছেন ৬৭ হাজার ১৬৬ জন। এই কর অঞ্চলে রিটার্ন জমা পড়েছে ৩৪ হাজার ৫৪৭টি।
রিটার্নের সঙ্গে আয়কর আদায় হয়েছে ৪৩ কোটি ৩৪ লাখ ৪৫ হাজার ৯৬৬ টাকা। নতুন ইটিআইএন নিয়েছেন ১
হাজার ৯০৫ জন।
কর অঞ্চল-৩ এ সেবা নিয়েছেন ৪৮ হাজার ৮৪৫ জন। এই অঞ্চলে রিটার্ন জমা পড়েছে ৩৬ হাজার ৯৪৮টি।
রিটার্নের সঙ্গে আয়কর আদায় হয়েছে ৩৩ কোটি ৭ লাখ ৮৪ হাজার ৬২৭ টাকা। নতুন ইটিআইএন নিয়েছেন ২
হাজার ৭৮১ জন।
কর অঞ্চল-৪ এ সেবা নিয়েছেন ৯১ হাজার ৯১৮ জন। এই কর অঞ্চলে রিটার্ন জমা পড়েছে ৪৭ হাজার ৩৯৪টি।
রিটার্নের সঙ্গে আয়কর আদায় হয়েছে ২৫ কোটি ২ লাখ ৯৫ হাজার ৫৮২ টাকা। নতুন ইটিআইএন নিয়েছেন ২
হাজার ৮৪৩ জন।

“সোনালী ব্যাংক ও চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চুক্তি”
মোঃ ইব্রাহিম শেখ চট্টগ্রাম ব্যুরো:

চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারকারীরা এখন থেকে সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে অনলাইনে
যাবতীয় ফি ও চার্জ পরিশোধ করতে পারবেন।
বুধবার (১ ডিসেম্বর) সোনালী পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে বিবিধ ফি ও চার্জ আদায়ের লক্ষ্যে সোনালী ব্যাংক
লিমিটেড এবং চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের মধ্যে একটি চুক্তি সই হয়েছে।
সোনালী ব্যাংকের পক্ষে ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর সুভাষ চন্দ্র দাস এবং চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের পক্ষে
চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল মো. শাহজাহান।
চট্রগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের বোর্ড রুমে আয়োজিত চুক্তি সই অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে সোনালী ব্যাংকের চট্টগ্রাম
অফিসের জেনারেল ম্যানেজার মো. মুছা খাঁন, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (হারবার অ্যান্ড মেরিন) কমোডর
মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, সদস্য (প্রকৌশল) কমোডর মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমানসহ সোনালী ব্যাংক ও
চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের অন্যান্য নির্বাহী ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এ চুক্তির ফলে চিটাগাং পোর্ট ব্যবহারকারীরা ঘরে বসে অনলাইনে সোনালী পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহার করে
যাবতীয় ফি ও চার্জ পরিশোধ করতে পারবেন।
সোনালী ই-সেবা মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে ঘরে বসে দুই মিনিটে ব্যাংক হিসাব খোলা যায় এবং সোনালী ই-
ওয়ালেটের মাধ্যমে দিন-রাত যেকোনো সময় ব্যাংকিং লেনদেন করা যায়। ফলে অনলাইনের মাধমে যাবতীয়
ব্যাংকিং কার্যক্রম গ্রাহকদের দোরগোড়ায় পৌছাঁনো সম্ভব হচ্ছে।