কুমিল্লা বরুড়ায় নওগাঁ গ্রামে বিরল প্রজাতির শুকুনের দেখা।


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১৩, ২০২২, ৭:৩১ অপরাহ্ন / ২২৬
কুমিল্লা বরুড়ায় নওগাঁ গ্রামে বিরল প্রজাতির শুকুনের দেখা।
কুমিল্লা বরুড়ায় নওগাঁ গ্রামে বিরল প্রজাতির শুকুনের দেখা।
মোঃ মহিবুল্লাহ্ ভূঁইয়া বাবুল কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম ব্যুরো –
৭ই ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় কুমিল্লা বরুড়ায় নওগাঁ গ্রামে দীঘির পাড়ে বিড়াল প্রজাতির শুকুন দেখতে পায়।
 দীঘির পাড় গ্রামে পড়ে থাকা শুকুন পাখিটি উদ্ধার করে ঐ এলাকার শংকর ও ফারুক।
পরে স্থানীয় লোকেরা এই শুকুন পাখিটিকে রাস্তা পাশে দোকান ঘরে নিয়ে আসলে, একনজর দেখার  জন্য এলাকার লোকজন জোর হয়। পর স্থানীয়রা সিদ্ধান্ত নেন এই শুকুন পাখিটিকে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য   ৯৯৯ কল করেন। ৯৯৯ কল করে কোন সারা না পেয়ে,স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মী মোঃ মহিবুল্লাহ ভূইয়া বাবুলকে বিষয়টি জানান।
এ বিষয়ে মোঃ মহিবুল্লাহ ভূঁইয়া ফেসবুকে আপডেট দিলে। বিভিন্ন বন বিভাগে কর্মকর্তা গন যোগাযোগ করেন,
আজ ৮ ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় সাংবাদিক মোঃ মহিবুল্লাহ্ ভূঁইয়া বাবুল এর উপস্থিতিতে এলাকার লোকজন সহ
কাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম অফিসার ইন চার্জ, কুমিল্লা সামাজিক বন বিভাগ এবং  বরুড়া উপজেলা বন কর্মকর্তা (অতিরিক্ত বর্তমানে পাখিটি বিভাগীয় বন কর্মকর্তা দায়িত্ব ) কে বুঝিয়ে দেন।
বরুড়া ১৫ নং পয়াল গাছা ইউনিয়নে জন্ম নিবন্ধন বাণিজ্যের অভিযোগ কম্পিঃ ম্যান মহিনের বিরুদ্ধে। 
মোঃ মহিবুল্লাহ্ ভূঁইয়া বাবুল কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম ব্যুরো –
গত ৮ ই ডিসেম্বর  ২০২২ইং সকাল ১১ঃ ৩০ মিনিটের সময়   কুমিল্লা বরুড়ায় ১৫ নং পয়াল গাছা ইউনিয়নে জন্ম নিবন্ধন বাণিজ্যে অভিযোগ পাওয়া যায়, এই বিষয়ে ভুক্তভোগী জান্নাতুল ফেরদৌস ও প্রতিবন্ধী রেহানা আক্তার সহ আরো অনেক বলেন, আমাদের কাছ  থেকে বিভিন্ন কাজের কথা বলে প্রতারক কম্পিউটার ম্যান  মহিন ৪ শত টাকা হইতে ৫ শত টাকা পর্যন্ত নিয়েছে ও তার সাথে ভোগান্তরি তো ফ্রী রয়েছে। আমরা সাধারণ মানুষ এই বিষয়ে মুখ খুললে বা বলতে চাইলে আমাদের জন্ম নিবন্ধন দিবে না বলে হুমকি দেয় এবং কি তার বাবা বরুড়া উপজেল প্রশাসনের কাজ করে বলেও হুমকি প্রদান করে কাউকে মানুষ হিসেবে গণ্য করে না এই মহিন ।
আমরা সাধারণ মানুষ নিরুপায় হয়ে জম্ম নিবন্ধন নিতে বাধ্য হই,  ভুক্তভোগীরা আরও বলেন আমরা সাংবাদিক মোঃ মহিবুল্লাহ্ ভূঁইয়া বাবুল কে পেয়ে, আমাদের  মনে ও প্রানে সাহস এসেছে, আমরা দুই একটি কথা বলার জন্য ক্যামেরার সামনে এসেছি,  তাই আমরা সত্যটাকে তুলে ধরলাম গণমাধ্যম কর্মীর মাধ্যমে।