কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে মেলার নামে সমাজ ও ইসলাম বিরোধী কার্যক্রম বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে এলাকাবাসী। 


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২২, ২০২২, ৩:৪৯ অপরাহ্ন / ৩৫৩
কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে মেলার নামে সমাজ ও ইসলাম বিরোধী কার্যক্রম বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে এলাকাবাসী। 

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে মেলার নামে সমাজ ও ইসলাম বিরোধী কার্যক্রম বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে এলাকাবাসী।
শামীম সরকার, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি :

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরের পুমদীতে আহাম্মদ ফকির নামে কথিত এক কবিরাজের কবরকে ঘিরে বাৎসরিক মেলার নামে সমাজ ও ইসলাম বিরোধী কার্যক্রম বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন সচেতন এলাকাবাসী। বুধবার (২১ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় কিশোরগঞ্জ-হোসেনপুর সড়কে উপজেলার রামপুর বাজারে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে এলাকাবাসী। মানববন্ধনে এলাকার বিভিন্ন মসজিদের ইমাম ও খতিব, মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং এলাকাবাসী অংশ নেন। মাওলানা আবদুল বাছীর সাদীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ডাহেরা গোলপুকুরপাড় আলিম মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম মামুন, আব্দুল্লাহ ইবনে আবুবকর (রা.) মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা সাইয়েদ সিরাজুল হুদা, হাসান রাবেয়া (রা.) মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা কারিমুল্লাহ, মাওলানা আবুল কাশেম জুয়েল, মাওলানা আবুল কালাম ফারুকী, মাওলানা নাজমুল হাসান ফয়সাল, মাওলানা রফিকুল ইসলাম, আবুল ফাতাহ মো. নূরুল্লাহ, মাওলানা এমদাদুল হক, হাফেজ তাজুল ইসলাম, মাওলানা মোতাসিন বিল্লাহ প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, কতিপয় ব্যক্তির যোগসাজশে কথিত আহাম্মদ কবিরাজের নামে পুমদী গ্রামে সপ্তাহব্যাপী মেলায় জুয়ার আসর, মাদকের আড্ডা, ইভটিজিংসহ নানা ধরণের অপকর্ম হয়ে থাকে। এ মেলা চললে এলাকার যুব সমাজের অবক্ষয় ঘটবে। এমনকি এমেলায় ইসলাম বিরোধী কার্যকলাপও চলে। সচেতন এলাকাবাসীর প্রতিবাদের মুখে গত চার বছর ধরে মেলাটি বন্ধ রয়েছে। এলাকার কিছু কতিপয় ব্যক্তি নিজেদের লাভে জন্য ২৩ ডিসেম্বর আবারও মেলাটি চালু করার ঘোষণা দিয়েছে। এ কারণে এলাকার সচেতন ও ধর্মপ্রাণ মানুষ ক্ষুব্ধ। বক্তারা আরও বলেন, মেলার নাম করে  সমাজ ও ইসলাম বিরোধী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে প্রতিবারের মতো এবারও তারা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। এমনকি এ মেলা বন্ধ করতে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত আবেদনও করেছেন তার। সমাজ ও ইসলাম বিরোধী এ মেলা বন্ধ করার জন্য প্রশাসনের নিকট জোর দাবি জানান তারা। অন্যথায় সচেতন এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলারও হুশিয়ারি দেন বক্তারা।