ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের ভীড়ে চিকিৎসা সেবা ব্যাহত


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২৩, ৫:৩২ অপরাহ্ন / ২৭০
ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের ভীড়ে চিকিৎসা সেবা ব্যাহত
নাহিদ মিয়া,মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি।
হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তৃপক্ষের বিধিনিষেধ অমান্য করে অফিসিয়াল সময়ে বিভিন্ন ঔষধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধিরা ডাক্তারের চেম্বারে ভীড় জমিয়ে রাখছেন। তাদের অনাকাংক্ষিত এই ভীড়ের কারণে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা মারাত্বক বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন। ফলে ব্যাহত হচ্ছে স্বাস্থ্যসেবা।
অনুসন্ধানে দেখা গেছে, দিনভর মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভদের দখলে থাকে মাধবপুরে সদর হাসপাতাল। সকাল থেকেই তারা হাসপাতালের চিকিৎসকদের চেম্বার ও বিভিন্ন ওয়ার্ডে অবাধ বিচরণ করে থাকেন। শুধু তাই নয়, হাসপাতালের জরুরী বিভাগের সামনে, হাসপাতালের ভেতরে ডাক্তারদের চেম্বারের সামনে অবস্থান নিয়ে তারা রোগীদের ব্যবস্থাপত্র নিয়ে টানাহেঁচড়া করে থাকেন। ব্যবস্থাপত্র ছবি তোলেন, দেখেন কোন কোম্পানির ঔষধ লেখা হয়েছে। এসময় বিভিন্ন ঔষধ কোম্পানির জেলা প্রতিনিধিরাও মোটরসাইকেল নিয়ে অবস্থান করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।হঠাৎ সাংবাদিক এর উপস্থিতি দেখে সটকে পড়ে রিপ্রেজেন্টেটিভরা।
এদিকে হাসপাতালের সন্নিকটে অবস্থিত চার থেকে পাঁচটি প্রাইভেট ক্লিনিকের কিছু দালাল নিজেদের মোবাইল নম্বর দিয়ে রোগী বা তার স্বজনদের বিভিন্ন ক্লিনিক বা ডায়াগনিস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরামর্শ দেন এবং অনেকটা বাধ্য করেন তাদের নিদিষ্ট ক্লিনিকে পরীক্ষা নীরিক্ষা করানোর কথা বলে নিয়ে যান।
বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টায় মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১১৪ নং কক্ষে,কর্তব্যরত চিকিৎসক কাছে শিশুদের চিকিৎসা বিষয়ে জানতে চাইলে কথা বলতে রাজি হয়নি চিকিৎসক। মজীনা বেগম (৪২) নামে এক রুগীর অভিভাবক বলেন,ডাক্তার রুগী দেখবে কোন সময়,ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধি সাথে কথা বলতেই শেষ হয় না। কখন ডাক্তার রোগী দেখে ওষুধ লিখে দিবে। সরকারের কাজের কাজের কিছুই হয়না।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভ বলেন, কি করব ভাই এম,এ পাশ করে ও সরকারি চাকুরী সোনার হরিণ। বাধ্য হয়েই কোম্পানির দালালি করছি।
এ ব্যাপারে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ইশতিয়াক মামুন জানান,
 সকাল ১০ ঘটিকা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধিরা হাসপাতালের ডাক্তারের চেম্বারে কোন প্রকার ভিজিট করতে পারবে না।সপ্তাহে দুই দিন রবিবার- সোমবারে ভিজিট করতে পারে।এই বিধি নিষেধ যদি কোন ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধি অমান্য করে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।