সুনামগঞ্জ, তাহিরপুরে জমে উঠেছে কয়লা শুল্ক স্টেশন, সাধারণ শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে।


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২৪, ২০২২, ৬:০২ অপরাহ্ন / ৫৪৫
সুনামগঞ্জ, তাহিরপুরে জমে উঠেছে কয়লা শুল্ক স্টেশন, সাধারণ শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে।
সুনামগঞ্জ, তাহিরপুরে জমে উঠেছে কয়লা শুল্ক স্টেশন, সাধারণ শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে।

শওকত হাসান, তাহিরপুর প্রতিনিধিঃ-
দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলের দু’টিস্থল তাহিরপুর উপজেলার বড়ছড়া ও চারাগাঁও কয়লা শুল্ক স্টেশন জমে উঠেছে। এতে সাধারণ শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে। দীর্ঘ দশ মাস বন্ধ থাকার পর গত সোমবার (১৯ডিসেম্বর) আনুষ্ঠানিকভাবে এদুটি স্টেশন দিয়ে আমদানী কার্যক্রম শুভ উদ্বোধন করেন তাহিরপুর কয়লা আমদানী কারক গ্রুপের সভাপতি হাজী আলখাছ উদ্দিন খন্দকার। শুল্ক স্টেশন বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগের শিকার হয় শ্রমিক ও ব্যবসায়ীরা এবং সেই সাথে সরকার কোটি কোটি টাকা রাজস্ব বঞ্চিত হয়। দীর্ঘ দিন পরে আমদানী কার্যক্রম শুরু হওয়ায় এলাকার সাধারণ শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে।
তাহিরপুর কয়লা আমদানী কারক গ্রুপ সূত্রে জানাযায়, তাহিরপুরের দুটি শুল্ক স্টেশন বড়ছড়া ও চারাগাঁও  দিয়ে নব্বইয়ের দশকের প্রথমে ভারত থেকে কয়লা আমদানী শুরু হয়। ২০১৪ সালে ভারতের মেঘালয়ের একটি পরিবেশবাদী সংস্থার মামলার পরিপ্রেক্ষিতে পরিবেশগত ক্ষতির কথা বিবেচনা করে ভারতের ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইব্যুনাল কয়লা রপ্তানীতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। পরে টানা প্রায় সাত মাস বন্ধ থাকে ভারত থেকে কয়লা আমদানী। এরপর বিভিন্ন সময় আমদানী শুরু হলেও তা আর নিয়মিত হয়নি। চলতি বছরের মার্চ থেকে প্রায় ১০মাস ধরে কয়লা আমদানি বন্ধ রয়েছে। কয়লা আমদানি বন্ধ থাকায় অনেক ক্ষতির মুখে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা এবং বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে সাধারণ শ্রমিক। সেই সাথে সরকারও কোটি কোটি টাকার রাজস্ব বঞ্চিত হয়েছে। তাহিরপুর কয়লা আমদানী কারক গ্রুপের উপদেষ্টা ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাজী রিয়াজ উদ্দিন খন্দকার লিটন জানান, গত দশ মাস বন্ধ থাকায় ৫শতাধিক ব্যবসায়ী চরম ক্ষতির মুখে পড়েছিলো। অন্যদিকে কয়লা আমদানী বন্ধ থাকায় প্রায় ২৫হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। অনেকে এলাকা ছেড়ে কাজের সন্ধানে অন্যত্র চলে গেছেন। এখন কয়লা আমদানি চালু হওয়ায় শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের মুখে হাসি ফুটেছে।
কয়লা আমদানীকারক স্বপন কুমার দাস বলেন, দীর্ঘদিন কয়লা আমদানী কার্যক্রম বন্ধ থাকার কারণে বড়ছড়া ও চারাগাঁও বাজারে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা ব্যবসায়ীরা তাদের গ্রামের ঠিকানায় চলে গিয়েছিল। বড়ছড়া ও চারাগাঁও শুল্ক স্টেশন পূনরায় চালু হওয়াতে বাজারগুলো আবার জমজমাট হয়ে উঠেছে।
তাহিরপুর কয়লা আমদানী কারক গ্রুপের সভাপতি হাজী আলখাছ উদ্দিন খন্দকার জানান, ভারতের মেঘালয়ে মামলা জনিত  কারণে দীর্ঘদিন ধরে কয়লা আমদানী বন্ধ ছিল। সম্প্রতি একটি মামলার আদেশে বড়ছড়া ও চারাগাঁও শুল্ক স্টেশন দিয়ে এলসি’র কয়লা আমদানী হওয়ার ফলে সীমান্ত এলাকাতে কয়লা পরিবহণ কাজে শ্রমিকদের মধ্যে আনন্দের জোয়ার বইছে।
এর সাথে জড়িত শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের জীবন জীবিকার কথা বিবেচনা করে এবং রাজস্ব আদায়ের স্বার্থে বড়ছড়া ও চারাগাঁও শুল্ক স্টেশন দিয়ে কয়লা আমদানি সারা বছর চালু থাকে তার জন্য সরকার যেন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে। সে জন্য জোর দাবী জানাই।
শওকত হাসান
তাহিরপুর, সুনামগঞ্জ
০১৭১৭৯৮৬২৩২
২২.১২.২২