“আবুল হাছান মেম্বার নয়,সে এখন ভূমিদস্যু বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী পরিবার”


প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৩, ২০২২, ৮:১৭ অপরাহ্ন / ২৫০
“আবুল হাছান মেম্বার নয়,সে এখন ভূমিদস্যু বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী পরিবার”

“আবুল হাছান মেম্বার নয়,সে এখন ভূমিদস্যু বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী পরিবার”

(কুমিল্লা বরুড়া উপজেলা প্রতিনিধি মোঃ জহির হোসেন) –

শত বছর ধরে যে জায়গা ভোগদখলে ছিলেন, আলী হোসেন ও তার পরিবার সে জায়গা জোর করে দখল দিলেন আবুল হাছান  মেম্বার যাকে একনামে ভুৃৃমি দস্যু হিসাবে চিনেন,কুমিল্লা জেলা বরুড়া উপজেলা ১০নং উওর শীলমুড়ি ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আড়ই গ্রামের বাসিন্দা মোঃ আলি হোসেন এর এ অভিযোগ উঠে আসছে। তিনি আরও বলেন এ জায়গা আমার বাবার ও দাদার ওয়ারিশ সুত্রে আমি ও আমার চাচাত ভাই গং মালিক হয়ে প্রায় একশত বছর ধরে আমাদের দখলে রহিয়াছে, সব ধরনের কাগজ পত্র আছে কিন্তু আজ এক বছর ধরে আবুল হাছান মেম্বার আমাদের জায়গা দখল দিয়েছে।
এখানে খান্ত হয় নাই সে এবং তার পরিবারের সবাই মিলে  বাহির থেকে গুন্ডা ভাড়া করে এনে আমাদেরকে মেরে পেলার হুমকি ধমকি দেন এমনকি আমি সহ আমার পরিবারের সবাই এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতেছি, আমি এবং আমার পরিবারের উপর যে কোন সময় হামলা  করতে পারে আমাদের দলিলকৃত ১৬ শতক জায়গা দখল করার পর বরুড়া থানায় গিয়ে অভিযোগ করি, কর্তব্যরত  এস আই চন্দন কান্তি দাশ তৎক্ষণাৎ ঘটনাস্থলে এসে তা দেখে যান এবং  আমার বাপ দাদার দখলকৃত  সম্পত্তি আবুল হাছান মেম্বার এর দখলে আছে বলে নিশ্চিত হন, আমাদের উভয়ের মধ্যে দফায় দফায়  গ্রাম্ম সালিশ হয়, কিন্তু আবুল হাছান মেম্বার উক্ত শালিস মানে নাই পরে আমরা ভুক্তভোগী পরিবারের সকলে মিলে বরুড়া থানায় গিয়ে একটি অভিযোগ করি যাহার  SDR নং ২২১/২২. ইং এখানে কোন সমাধান না পেয়ে, পরে আমি নিরউপায় হয়ে কোর্টে  গিয়ে মামালা করি যাহার সি আর মামলা নং ১২৯/২২ ( বরুড়া)ধারা-১৪৩/৩২৩/৪২৭/৩৭৯/৪৪৭/৫০৬/৩৪ পেনাল কোড। স্মারক নং ৬৩৫.তাং – ১৫/০২/২০২২খ্রিঃ বরুড়া থানা থেকে যে রিপোর্ট দিয়েছেন সেটার কিছু অংশ তুলে ধরলাম ০৫/০২/২০২২ইং তারিখ সকাল অনুমান ০৯.০০ ঘটিকার সময় বিবাদীগন সকলে বেআইনি জনতাবদ্বে একত্রিত হইয়া বাদীর ভোগ দখলীয় জায়গায় যাইয়া সেখানে থাকা বেশ কিছু গাছ কেটে পেলে বলে রিপোর্ট দেয় কিন্তু তাতেও কোন লাভ হয় নাই এ সময় ভুক্তভোগী মোঃ আলী হোসেন বলেন গত ০৫/০২/২০২২ইং তারিখ সকাল অনুমান ০৯.০০ ঘটিকা।  ঘটনাস্থলে বরুড়া থানাধীন আড়াই গ্রামে আমার নিজ বাড়িতে পৈত্রিক ওয়ারিশসুত্রে ও ক্রয়সুত্রে মালিকীয় জায়গা সম্পত্তি নিয়া বিরোধ চলিয়া আসিতেছে, উক্ত বিষয়ে স্হানীয়ভাবে বহুবার সালিশ বৈঠক হইলেও মোঃ আবুল হাছান মেম্বার  কোন তা পরোয়া করে নাই, বরং প্রতিনিয়ত আমাদের বাগান থেকে গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে। এখানে শেষ নয় আমাদের অজান্তে জিবন নাশের জন্য তার দেওয়া টিনের বেড়াতে বৈদ্যুতিক সংযোগ দিয়ে রেখেছে, এ সকল কুকর্ম গুলোর ভিডিও ফুটেজ সহ ও ছবি আমাদের সংগৃহীত রহিয়াছে,   এ সময় ভুক্তভোগী আলী হোসেন গং কেঁদে দিয়ে  বলেন, বিভিন্ন প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বিচার না পেয়ে, এখন আমি অসহায়ত্ব জিবন যাপন করছেন। এ সময়  ভুক্তভোগী পরিবার আর বলেন  বিজ্ঞ আদালতের মামলা চলমান থাকা কালীন কোন বাহুবলে সেই স্থানের গাছ কেটে বিক্রি করে দেয়,অসহায় আলী হোসেন সহ তার পরিবারটি আইনশৃঙ্খলা  বাহিনীর দায়িত্বরত যারা আছেন তাদের কাছে  এর সুবিচার চায়।